Monday, 11 March 2019

বিজেপিকে তুলোধোনা করল তাদেরই শরিক দল শিবসেনা, দূরত্ব ক্রমেই বাড়ছে

ওয়েব ডেস্ক ১১ই  মার্চ ২০১৯: বিজেপির সঙ্গে  থেকে শিবসেনা যে ভালো  নেই তার  একাধিকবার প্রমান পাওয়া গেছে । এবার প্রকাশ্যেই সমালোচনার ঝড় তুললো শিবসেনা বিজেপির সমন্ধে । যা এক কথায় নজির বিহীন , কেননা শিবসেনা বিজেপির সহযোগী দল তারা একসাথে মহারাষ্ট্র চালাচ্ছে ।সোমবার শিবসেনা বলে, দেশপ্রেমের ওপর কোনও একটি রাজনৈতিক দলের একচেটিয়া অধিকার নেই, এবং রাজনৈতিক বিরোধীদের ‘দেশদ্রোহী’ বলে মিথ্যা অপবাদ দেওয়া বাক-স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়ারই সামিল।
সাম্প্রতিক বালাকোট বিমান হামলাকে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা, সেই বিতর্কের প্রেক্ষিতেই এই মন্তব্য উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বাধীন দলের।দলের তরফ থেকে আরো যোগ করা হয় যাঁরা বিমান হানার প্রমাণ দাবী করছেন, এবং যাঁরা সৈনিকের উর্দি গায়ে চড়িয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন, দু’পক্ষই ভুল পথে চলছেন, বলছে সেনা। এক্ষেত্রে তাদের ইশারা বিশেষ করে দিল্লির বিজেপি প্রধান মনোজ তিওয়ারির দিকে, যিনি এক সাম্প্রতিক জনসভায় হাজির হন সেনাবাহিনীর উর্দি পরে। শিবসেনার মতে, তিনি সৈনিকদের এবং তাঁদের সাহসের অপমান করেছেন।“একজন সৈনিক তাঁর উর্দি অর্জন করেন বহুদিনের কঠিন প্রশিক্ষণ এবং পরিশ্রমের ফলে। সেটিকে এভাবে কেন খেলো করা? এতে তো বিরোধী পক্ষের অভিযোগ আরও সমর্থন পাবে, যে বিজেপি এই বিমান হানাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করছে,” বলছে কেন্দ্রে এবং মহারাষ্ট্রে বিজেপির দীর্ঘদিনের জোট সঙ্গী।‘সামনা’-র সম্পাদকীয় একথাও বলেছে, যে পুলওয়ামার সন্ত্রাসবাদী হামলায় ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যু বিমান হানার চেয়ে আরও অনেক গুরুতর বিষয়, এবং কাশ্মীরের ওই মর্মান্তিক ঘটনার ছবি ব্যবহার করে শাসক দলকে অস্বস্তিতে ফেলতে পারে বিরোধী পক্ষ। “আমরা আমাদের সৈনিকদের মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচাতে ব্যর্থ হয়েছি, কিন্তু কেউ কেউ তাঁদের উর্দি পরে ফেলছেন রাজনৈতিক প্রচারের স্বার্থে। একেবারেই ভালো দেখায় না যখন নির্বাচন কমিশনকে হস্তক্ষেপ করে বলতে হয়, যে কোনও রাজনৈতিক দল জওয়ানদের ছবি রাজনৈতিক প্রচারের কাজে ব্যবহার করতে পারবে না।” একসাথে থেকেও মনের দূরত্বটা শিবসেনা আর বিজেপির মধ্যে ক্রমেই যে বাড়ছে এটাই তার প্রমাণ । 

No comments:

Post a Comment

loading...