Wednesday, 27 March 2019

রেটিং পড়ল বিজেপির , হার নিশ্চিত, এ ডি আর এর রিপোর্টে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর সত্য

ওয়েব ডেস্ক  ২৭শে  মার্চ ২০১৯: "আচ্ছে  দিন আনেওয়ালে হ্যায়" মোদীজির মুখে অনেকবার শোনা গেছে , কিন্তু সেই "আচ্ছে দিন " তো আসেনি উল্টে  "বুড়ে  দিনে" পরিণত হয়েছে বলে সমীক্ষায় উঠে আসছে বাড়ে বাড়ে ।প্রসঙ্গত লোকসভা ভোটের আগে নরেন্দ্র মোদির সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলল একটি সমীক্ষা। দেশে কর্মসংস্থান–‌সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কেমন কাজ করেছে মোদি সরকার, তা নিয়ে দিল্লির স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস (এডিআর) ৫৩৪ লোকসভা কেন্দ্রের ২ লক্ষ ৭৩ হাজার ভোটারকে নিয়ে একটি সমীক্ষা করে।
২০১৮ সালে অক্টোবর ও ডিসেম্বরের মধ্যে করা এই সমীক্ষায় মোদি সরকার সব ক্ষেত্রেই মাঝারিরও নীচে নম্বর পেয়েছে। তার আগের বছরেও একই ধরনের সমীক্ষা চালিয়েছিল ওই সংস্থা। মানুষকে বলা হয়েছিল, ১, ২, ৩ করে ৫ পর্যন্ত রেটিং করতে। ৫–‌এর অর্থ ভাল, ৩ মানে মাঝারি এবং ১ হল খারাপ। ভোটারদের কাছে অগ্রাধিকারের হিসবে প্রথম ছিল চাকরি। তার পর স্বাস্থ্য–‌পরিষেবা ও পরিস্রুত জল। চাকরির ক্ষেত্রে ২০১৭ সালে যেখানে মোদি সরকার পেয়েছিল ৩।২, সেখানে ২০১৮–‌তে তা কমে দঁাড়িয়েছে ২।২। চিকিৎসার ক্ষেত্রে ২০১৭ সালের সমীক্ষায় যেখানে মোদি সরকার ৩।৭ পেয়েছিল, পরের বছর তা কমে হয়েছে ২।৪। তেমনই পানীয় জল এবং রাস্তাঘাটের ক্ষেত্রেও ২০১৭ সালের চেয়ে নম্বর কমেছে সরকারের। রাজ্য অনুযায়ী দেখলে বিহার, ছত্তিসগড়, ঝাড়খণ্ড, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, উত্তরাখণ্ড ও উত্তরপ্রদেশ— এই ৭ রাজ্যে কর্মসংস্থানের প্রয়োজনীয়তা ছিল মানুষের চাহিদার শীর্ষে। তেমনই ওডিশা, কর্ণাটক ও দমন–‌দিউয়ে অগ্রাধিকারের তালিকায় সবচেয়ে ওপরে ছিল পানীয় জল। চণ্ডীগড়ে আবার ভোটারদের অগ্রাধিকার জল আর বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণ। দিল্লিতে যানজট, মেঘালয়ে কৃষিবীজ ও সারে ভর্তুকি এবং ত্রিপুরায় কৃষিকাজের জন্য ঋণের সুযোগ মানুষের কাছে অগ্রাধিকার পেয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের ভোটাররা কোন্‌ প্রয়োজনীয়তাকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন, তা অবশ্য আলাদা করে সমীক্ষার রিপোর্টে বলা নেই। এই সমীক্ষা নিঃসন্দেহে রাতের ঘুম যে উড়িয়ে দিল বিজেপির সেটা এখন থেকেই বলে দেওয়া যায় ।

No comments:

Post a Comment

loading...