Monday, 1 April 2019

লোকসভা ভোটের আগে ধাক্কা খেল ত্রিপুরা বিজেপি , পরে যাওয়ার সম্ভাবনা সরকারের

ওয়েব ডেস্ক ১লা এপ্রিল  ২০১৯: মিথ্যে প্রতিশ্রুতির মাশুল এবার গুনতে হচ্ছে ত্রিপুরার বিজেপি সরকারকে ।   মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাদের ভোটে বিজেপি ত্রিপুরার মসনদে বসেছে , আস্তে আস্তে তাদের সমর্থন কংগ্রেসের দিকে খুকতে শুরু করল যা নিঃসন্দেহে বিপ্লব কুমারের রাতের ঘুম কেড়ে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট ।প্রসঙ্গত ২০১৮-র ফেব্রুয়ারিতে ত্রিপুরায় সরকার গঠন করেছিল বিজেপি-আইপিএফটি জোট। ৬০ টির মধ্যে ৪৪ টি আসন দখল করেছিল এই জোট।
প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি  প্রদ্যোত কিশোর মানিক্য দেববর্মন জানিয়েছেন, বিজেপির বিরুদ্ধে তিনি একত্রিত লড়াই লড়তে চান। প্রথমের দিকে আইপিএফটি নেতারা তাঁর এই আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।২০০৯ সালে পৃথক তুইপ্রাল্যান্ডের দাবি নিয়ে প্রকাশ্যে আসে আইপিএফটি। ত্রিপুরা ট্রাইবাল এরিয়াস অটোনমাস ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিল এরিয়া নিয়ে এই পৃথক রাজ্যের দাবি করেছিল তারা। আলাদা রাজ্যের দাবি তুলে তাঁদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে, এই অভিযোগেই ওই তিন নেত্রী আইপিএফটি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন। মানুষকে বিশ্বাস করানো হয়েছিল তুইপ্রাল্যান্ড গঠন করা হবে। কিন্তু তাদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছিল। মন্তব্য করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। এঁদেরই যাঁরা রাজ্য ক্যাবিনেটে রয়েছেন, তাঁরাই নিজেদের মানুষগুলির সঙ্গে প্রতারণা করছেন। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি আইপিএফটি সুপ্রিমো এনসি দেববর্মা এবং সাধারণ সম্পাদক মেভার কুমার জামাতিয়ার কথা উল্লেথ করেছেন। তাঁরা দুজনেই রাজ্যের বিপ্লব দেব মন্ত্রিসভার সদস্য। পাশাপাশি তিনি ককবরককে সংবিধানের অষ্টম তফশিলে আনার ব্যাপারেও আশ্বাস দিয়েছেন।

No comments:

Post a Comment

loading...