Tuesday, 30 April 2019

উস্কানি মূলক বক্তিতা দিয়ে ভোটের বৈতরণী পার হওয়ার ইচ্ছে ছিল সাক্ষী মহারাজের , বেঁকে বসল উন্নাওয়ের মানুষ

ওয়েব ডেস্ক ৩০শে এপ্রিল ২০১৯: মধ্যযুগীয় বর্বর মানসিকতার এই সাক্ষী মহারাজই পরামর্শ দিয়েছিলেন, হিন্দু মহিলাদের উচিত প্রত্যেকে চারটি করে সন্তানের জন্ম দেওয়া। কারণ মুসলিমরা নাকি ৪টি বিয়ে করেন আর ৪০ সন্তানের জন্ম দেন। তিনি বলেছিলেন, মাদ্রাসাগুলি সন্ত্রাসবাদীদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। সাক্ষী মহারাজ দাবি করেছেন, গান্ধিরখুনি নাথুরাম গডসে দেশ প্রেমিক। উগ্র হিন্দুত্ববাদী প্রচারেই সাক্ষী মহারাজের প্রধান হাতিয়ার।
তিনি অবশ্য এমন একজন সন্ন্যাসী যার বিরুদ্ধে দুটি ধর্ষণের অভিযোগ সহ ৩৪ টি অপরাধের মামলা রয়েছে। মনোনয়ন জমা দিতে গিয়েও নিজের অপরাধের কাজকর্মের তালিকা দিয়েছেন স্বামী সচিনানন্দ হরি ওরফে সাক্ষী মহারাজ। এত অপরাধ যার বিরুদ্ধে , তিনি সন্ন্যাসী হতে পারে না বলে উন্নাওয়ের বাসিন্দাদের অভিমত। চুরি, ডাকাতি, লোক ঠকানো সবই করেছেন এই বি জে পি নেতা। ১৯৯০ সালে বি জে পি তে যোগ দিয়ে নিজের রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন, পরে এস পি হয়ে বি জে পি ‘কে প্রত্যাবর্তন। ২০১৪ সালে মোদি হাওয়ায় বিপুল ভোটে জিতেছিলেন কিন্তু এবার হাল এত খারাপ যে বিজেপি তাকে প্রার্থী করতেই চাইছিল না। কারণ উন্নাওয়ের মানুষ প্রবল ক্ষুদ্ধ মহারাজের উপর। সাংসদ হিসাবে নিজের এলাকার জন্য উন্নয়নমূলক কোনও কাজ করেনইনি। বিষোদ্গার করতে সিদ্ধহস্ত এই বি জে পি নেতাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েই উন্নাওয়ের মানুষ বলেছেন, পরের লোকসভায় ভোট দেব।

No comments:

Post a Comment

loading...