Thursday, 4 April 2019

উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়ল মোদী সরকার ডোকলাম নিয়ে ঝামেলা এখনো মেটাতে পারেনি , চীন তৈরি করছে রাস্তা এবং হেলিপ্যাডও

ওয়েব ডেস্ক ৪ঠা এপ্রিল ২০১৯: ডোকলাম নিয়ে নরেন্দ্র মোদী অনেক কথাই বলেছিলেন । তিনি বুঝিয়ে ছিলেন দেশবাসীকে কংগ্রেসের আমলে কেন্দ্র সরকার চীনের ভয়ে কুঁকড়ে থাকতো , এবার তার আমলে ভারতীয়রা চোখে চোখ রেখে  কথা বলছে ।অজিত দোভালকে সঙ্গে নিয়ে চিনি আগ্রাসন তিনি থামাতে পেরেছেন । এটা দু বছরের আগের ঘটনা ।এবার সেই দুবছরের কাটতে না কাটতেই চীন ডাকলাম নিয়ে আবার মাথা চাড়া দিল । দুবছরের আগেকার মতোই এবার রাস্তা তৈরির কাজে হাত লাগলো চীন ।তবে এবার রাস্তা ছাড়াও হেলিপোর্ট তৈরির ছক কষছে চিন। খবর এমনই। ভুটানের পশ্চিমাংশের মালভূমি অঞ্চল ডোকালামে সড়ক ও হেলিপোর্ট তৈরির সমস্ত ছক সাজিয়ে ফেলেছে চিন। স্যাটেলাইট ইমেজে চিনের এমন কারসাজির ছবি ধরা পড়েছে।
 চিনের লিবারেশন আর্মিকেও সেই অঞ্চলে টহল দিতে দেখা গিয়েছে। ইয়াটং ও টিসোনা সেক্টরে পিপল’স লিবারেশন আর্মি কড়া পাহাড়ায় রয়েছে বলে খবর। ২০১৭ সালে ৭২ দিন ধরে ডোকালামের ট্রাইজংশনে ঘাঁটি গেড়েছিল লিবারেশন আর্মি।  সেবারও ভারতীয় সেনা বাধা দেয়। শেষ পর্যন্ত আলোচনার পর বেজিং ও দিল্লি সীমান্ত থেকে বাহিনী উঠিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। অরুণাচল নিয়ে চিন-ভারত সঙ্ঘাত সংঘাত দীর্ঘদিনের! অরুণাচলকে দক্ষিণ তিব্বত বলে দীর্ঘদিন বলে দাবি করছে চিন। অরুণাচলের নিকটবর্তী ভারত-চিন সীমান্তে সোনার খনির সন্ধান পাওয়া গিয়েছে বলে খবর রয়েছে। যার ফলে  অরুণাচল সীমান্তবর্তী নিজেদের ভূখণ্ডে জোরকদমে খননকাজ শুরু করেছে চিন। মাটির নিচে থাকা এই বিপুল সম্পদের আনুমানিক মূল্য নাকি প্রায় ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার। এই স্বর্ণখনির অধিকার পেতে চাইছে চিন। চিনা সংবাদমাধ্যমের খবর, হুনজে কাউন্টিতে জোরকদমে চলছে খননকাজ। তবে ডোকলামে চিনের রাস্তা নির্মানের উদ্দেশ্য আলাদা। মূলত শিলিগুড়ি করিডরে ঝামফেরি রিজ হয়ে শিলিগুড়ি করিডরে ঢোকার চেষ্টা করছে চিন। ভারতীয় সেনার তরফে এমনটাই দাবি করা হয়েছিল।এবার একটাই প্রশ্ন , কি করে নরেন্দ্র মোদীর সরকার ব্যাপারটাকে সামলাই এখন এটাই দেখার ।এটাও প্রমান করে দুবছরের আগেকার ডোকলামের  ঝামেলা এখনো মেটেনি ।

No comments:

Post a Comment

loading...