Wednesday, 24 April 2019

বারংবার নির্বাচনী প্রচারে সেনা বাহিনীর প্রসঙ্গ টেনে আনার জন্য "বিপাকে " পড়তে পারেন মোদী , অমিত শাহ

ওয়েব ডেস্ক ২৪ শে এপ্রিল ২০১৯: এক দিকে বাবুল সুপ্রিয় তার নিষিদ্ধ গান বুকফুলিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে শুনিয়েছেন , তখন জনগণের মনে প্রশ্ন উঠেছিল, নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞা বাবুলের অমান্য করার স্পর্ধা হল কি করে ? কিন্তু কেউ কি জানে সেই নির্বাচন কমিশন যারা পরিষ্কার ভাষায় জানিয়ে দিয়েছিল নির্বাচনী প্রচারে সেনাবাহিনীর প্রসঙ্গ কোনো মতেই টেনে আনা যাবেনা সেই প্রসঙ্গই প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আর অমিত শাহ প্রায়শই টেনে আনছেন ।    কমিশন সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে ‘খুব শীঘ্র’ই পদক্ষেপ নিতে চলেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন।
বিজেপি প্রথম থেকেই জাতীয় নিরাপত্তা এবং জাতীয়তাবাদকে প্রচারের মূল বিষয় হিসাবে তুলে ধরেছে। স্বাভাবিক ভাবেই বিরোধীদের অভিযোগ মতো বিজেপির প্রচারে উঠে আসা বিষয়গুলি আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে কি না, সেটাই খতিয়ে দেখার কাজ করছে কমিশন।
গত মঙ্গলবারই কমিশন জানিয়েছিল, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। এ দিন কমিশন সূত্রে খবর, সেই বিষয়ে ‘খুব শীঘ্র’ই পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কিন্তু কবে?
কমিশনের এক আধিকারিক সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, “আমরা নির্বাচন শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে পারব না। নির্বাচনী আধিকারিকরা এ ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করছে”।
অমিত শাহ আর নরেন্দ্র মোদী তাদের এই ইচ্ছা কৃত ভুলের জন্য কমিশনের শাস্তির মুখে যে পর্বেই এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই ।

No comments:

Post a Comment

loading...