Friday, 12 April 2019

যেখানে নিশীথদের নাটক অব্যাহত ,সেখানে দমবন্ধ করা অবস্থার থেকে মুক্তি দিতে পারেন এক জনই , তার নাম মমতা

ওয়েব ডেস্ক ১২ই এপ্রিল ২০১৯: একবার জ্যোতি বসুর প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুযোগ এসেছিল , রণে ভঙ্গ দিয়েছিলেন সিপিএমের শ্রীযুক্ত প্রকাশ ক্যারাট , তখন আলিমুদ্দিনের কিছু নেতাদের কাছে প্রকাশ ক্যারাটের বাণী ঈশ্বরের বাণী বলে মনে হয়েছিল । সেটা যে কতটা ভুল ছিল নিজেদের ৩৪ বছরের বাংলার রাজত্ব থেকে বিতাড়িত হয়ে সেই ভুলের মূল্য চুকিয়েছেন বলে অনেক বামপন্থীদের মত । এবার আবার সুযোগ এসেছে , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাধ্যমে ।দেশে যখন অসহিষ্ণুতার বাতাবরণ সেই দমবন্ধ করা অবস্থার থেকে একমাত্র নিষ্কৃতি দিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই, এটাই সারা ভারত বর্ষের জনগণের একান্ত ইচ্ছে । আজ মমতার গন্তব্য কার্শিয়ং। গতকাল প্রথম দফার ভোটের দিন দার্জিলিঙে সভা করেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। দার্জিলিঙের সভামঞ্চ থেকে বিজেপিকে সেই চেনা ভঙ্গিতে নিশানা করেছেন মমতা। অন্যদিকে, গতকাল কালিম্পং ও রায়গঞ্জের সভা থেকে তৃণমূলকে উৎখাতের ডাক দিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।

বিক্ষিপ্ত’ অশান্তির ঘটনার মধ্যে কাটল প্রথম দফার লোকসভা নির্বাচন। বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গ-সহ ২০টি রাজ্যের ৯১টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ ছিল। বাংলার দুই কেন্দ্র কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে সকাল থেকেই চোখে পড়েছিল ভোটারদের লম্বা লাইন। দেশের অন্য প্রান্তের মতো নির্বাচন ঘিরে বাংলাতেও বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনা ঘটেছে। ভোট উত্তাপের আঁচে আলিপুরদুয়ারে উত্তেজনা না ছড়ালেও খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে কোচবিহার। সকাল থেকেই কোচবিহারের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনা ঘটেছে। কোথাও বিরোধী এজেন্টকে বুথ থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তো কোথাও তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ বেধেছে। তবে এসব ঘটনাকে ছাপিয়ে শিরোনামে এসেছেন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। সাড়ে তিনশো বুথে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়ে কোচবিহার পলিটেকনিক কলেজে নিশীথের অবস্থান ঘিরে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়। পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের মধ্যে হাতাহাতি পর্যন্ত বেঁধে যায়। বিস্তারিত পড়ুন।এদিকে, বাংলার ভোট ‘শান্তিপূর্ণ’ বলেই দাবি করেছেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে। বিজেপির তরফে রাহুল সিনহাও জানিয়েছেন, ‘‘কয়েকটি ঘটনা ছাড়া ভোট মোটের উপর শান্তিপূর্ণ।’’ এখানেই প্রশ্ন যেখানে রাহুল সিনহার মতো লোক বলছেন ভোট সেটি পূর্ণ ভাবেই হয়েছে , তাহলে সস্তায় প্রচার পাওয়ার জন্যই কি নিশীথ প্রামানিকের মতো নেতারা নাটক করে বেড়াচ্ছেন ? প্রশ্ন বাংলার মানুষের , বিভিন্ন মাধ্যমে । 

No comments:

Post a Comment

loading...