Sunday, 21 April 2019

রংবাজের মতো মন্তব্য দিলীপ ঘোষের , তবে কি বাংলায় অশান্তি পাকানোই তার মূল উদেশ্য ? পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ২১শে এপ্রিল ২০১৯: সিপিএমের হার্মাদরাই কি এখন ভরসা জোগাচ্ছেন বিজেপির দিলীপ ঘোষকে? প্রশ্ন ওঠাটা স্বাভাবিক , কেননা যে ভাষাতে উনি কথা বলছেন সেটা পাড়ার কোনো রংবাজই বলতে পারে আর পারতো গ্রামেগঞ্জের সিপিএমের হার্মাদরাই। এটা দিনের আলোর মত পরিষ্কার আজ যারা বিজেপি করছে তারা এক সময়ে সিপিএমই করতো । শুধু মাত্র আলিমুদ্দিনের অঙ্গুলিহেলনে তারা আজ বিজেপি করছে যাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উৎখাত করা যায়  ।তবে এখনই ভাষা প্রয়োগে সংযত থাকা উচিত দিলীপ ঘোষের যেটা উনি করছেননা , এর পরিণতি অশান্তি ছড়া কিছুই নয় বলে মনে করেন বিদ্যজনেদের একাংশের ।আজ আবার বোমা ফাটালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি ।তিনি বলেন ভোট লুট করতে আসার আগে পিঠে সরষের তেল লাগিয়ে রাখুন ও ছয় মাসের জন্য হাসপাতালের বেড বুকিং করুন, তৃণমূল কর্মীদের উদ্দেশ্যে হুমকি বার্তা দিলেন দিলীপ ঘোষ।
বীরভূমের দুবরাজপুরে একটি জনসভা থেকে তৃণমূল কংগ্রেস কে এভাবেই কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, মনে রাখবেন এটা পঞ্চায়েত নির্বাচন নয়, এটা পার্লামেন্টের নির্বাচন। কোন দিদির পুলিশকে আমরা বুথের কাছে যেতে দেবোনা। দিল্লি থেকে দাদার পুলিশ দিয়ে ভোট হবে। গ্রামের লোকদের বলে দিন ভয়ের কোন কারণ নেই, দাদার পুলিশও থাকবে আর বিজেপি লোকও থাকবে।সুর চড়িয়ে তিনি আরও বলেন, “যদি কেউ ভোট লুট করতে আসে তাহলে তাদের বলে দিয়েন পিঠে যেন সর্ষের তেল লাগিয়ে আসে। মোটা মোটা বাঁশেরলাঠি কেটে রেখেছি আমরা, পিঠে পড়লে হাসপাতাল যেতে হবে, ছয় মাসের জন্য হাসপাতালের বেড যেন বুক করে আসে।

এছাড়াও তিনি বলেন, কোন ভোট লুট হতে দেবো না। বাংলায় গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবো, আপনারা উত্তরবঙ্গে দেখেছেন, কোচবিহারে আপনারা দেখেছেন আমাদের কর্মীরা ওদের এমন তারা করেছে তারা ভয় পেয়ে পালাচ্ছে। একদিকে চপ্পল একদিকে লুঙ্গি ধরে দৌড়াচ্ছে। কোন ভয়ের কারণ নেই সকলে নির্ভয়ে ভোট দিতে আসুন। কোনো গুন্ডারা যদি আমাদের কর্মীর গায়ে, মহিলার গায়ে হাত দেয় তাহলে বুক চিতিয়ে দাঁড়ান। তারপর কার কত দম আছে আমরা দেখে নেবো। এর পাশাপাশি বিধানসভা ভোটের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ২০১৯ এ মোদী প্রধানমন্ত্রী হবে, আর ২০২১ এ পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি সরকার গড়বে।কুরুচিকর মন্তব্য তিনি শতাব্দী রায়ের বিরুদ্ধেও করতে ছাড়েননি ।যেটা রীতিমত আপত্তিজনক । বাংলার রাজনীতি এরকম নয় , কিন্তু দিলীপ ঘোষের সৌজন্যে এরকম হয়ে যাচ্ছে ।

No comments:

Post a Comment

loading...