Friday, 5 April 2019

সিপিএমের শোষণ থেকে বাংলাকে মুক্তির পথ দেখিয়েছিল মমতা, এবার সেই আশাতেই বুক বাঁধছে অসমবাসীরা

ওয়েব ডেস্ক ৫ই এপ্রিল ২০১৯: কলকাতা  কাঁপানোর উদ্দেশ্যে মোদীজি পা রেখেছিলেন এই বাংলায়  , এবার বিজেপি শাসিত অসমে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাঁপিয়ে দিয়ে এলেন । 'দিদি'র সমর্থনে সারা অসম জুড়ে উঠলো জন উন্মাদনার জোয়ার ।প্রসঙ্গতবাংলার বাইরে শুক্রবার প্রথম নির্বাচনী সভা করল তৃণমূল। এ দিন অসমের ধুবুরীতে জনসভা করেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই সভা থেকে তিনি বিজেপিকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “তৃণমূলকে দুর্বল ভাবার কোনো কারণ নেই”।
মমতা বলেন, “অসমের মানুষের জন্য তৃণমূল লড়াই করছে। অসমের জন্য কংগ্রেস লড়েনি, অন্য কোনো দলও লড়েনি। অসম-বাংলার সম্পর্ক দীর্ঘদিনের৷ অসম-বাংলা কেউ আলাদা নয়৷ আগামী দিনে অসম জয় করব”।
নাগরিকপঞ্জি নিয়ে আশঙ্কায় থাকা অসমের মানুষের কাছে সাহসী বার্তা দিতে মমতা এ দিন বলেন, “এখানে এনআরসির নামে ভোটারদের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। অসমে বাঙালি হিন্দু এবং বাঙালি মুসলমানকে আলাদা করা হয়েছে। আগামী দিনে বিদেশি বানানোর পরই মানুষকে তাড়িয়ে দেবে। সবার পক্ষে কি বাবা-মায়ের জন্মতারিখ বলা সম্ভব। আমি কি আমার মায়ের জন্মতারিখ জানি। ডিটেনশন ক্যাম্পে শিশু ও মহিলাদের আটকে রেখে অত্যাচার চালাচ্ছে অসমের বিজেপি সরকার৷ অসমের উদ্বাস্তুদের ভুল বোঝানো হচ্ছে।”একই সঙ্গে নাগরিকপঞ্জি পেশের পর উত্তাল অসমের পরিস্থিতি তুলে ধরে নেত্রী বলেন, “এনআরসিতে ৪০ লক্ষ মানুষের নাম বাদ দেওয়ার পরই আমি প্রতিনিধিদল পাঠিয়েছিলাম। আমার বিরুদ্ধে এফআরআই করা হয়েছে, যাতে আমি অসমে ঢুকতে না পারি। কিন্তু ভয় দেখিয়ে তৃণমূলকে থামিয়ে রাখা যাবে না”।
তিনি বলেন, “বাংলার মতোই অসমের প্রতিটা জায়গায় যাব। দিল্লিতে বিজেপিকে বদলে দিন। তৃণমূলকে ভোট দিন।”একাধিক ইস্যুতে কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি এবং প্রধানমন্ত্রীকে কড়া ভাষায় আক্রমণের পাশাপাশি তিনি বলেন, “সারদা নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ঝুড়ি ঝুড়ি অভিযোগ আনছে বিজেপি। অসমের মন্ত্রীও সারদার থেকে টাকা নিয়েছেন। সারদা-কর্তা নিজে বলেছেন, অসমের ওই মন্ত্রীকে টাকা দিয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।” বিরোধীদের অনেকেই অন্তর থেকে মনে করেন মোদীজির জয়ের রথ যদি কেউ থামাতে সক্ষম হয় , তিনি আর কেউ নন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া । 

No comments:

Post a Comment

loading...