Sunday, 7 April 2019

ময়নাগুড়ির সভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তুঘলকের ঠাকুরদা বলে তুলোধোনা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ওয়েব ডেস্ক ৭ই এপ্রিল ২০১৯:যারা সত্যের পথে চলে তারা কোনো কিছুতেই ভয় করেননা ।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হলেন সেই মহিলা যিনি একার ক্ষমতায় পাঁচবার সিপিএমের রডের বাড়ি খেয়েও তিনি সিপিএমকে এই বাংলার থেকে বিদায় করেই ছেড়েছেন ।আর এবার প্রধানমন্ত্রীর স্বৈরাচারী শাসনে বিরুদ্ধে বলতে গেলেই একই লড়ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।প্রসঙ্গত আজ প্রধানমন্ত্রীকে মহম্মদ বিন তুঘলকের ঠাকুরদা বলে কটাক্ষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী।
ময়নাগুড়ির সভা থেকে রবিবার মুখ্যমন্ত্রী বলেন,  আগে ছিল চায়েওয়ালা এখন হয়েছে চৌকিদার। কিন্তু চৌকিদাররা মাইনে পায় না। সবাই বলছে  চাওয়ালা পালিয়ে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী যখন উত্তরবঙ্গের ময়নাগুড়িতে  সভা করছেন তাঁর একটু আগে  কোচবিহার থেকে  তোপ দেগেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সারদা- নারদা কাণ্ড নিয়ে তৃণমূলের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন প্রধানমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে নাম না করে  মুকুল রায়কে জড়িয়ে  প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করে মমতা  বলেন, সারদা- নারদার অভিযুকক্ত পাশে নিয়ে মিটিং করছেন আর  বলছেন তৃণমূল সারদা করেছে! আপনি সারদার নায়ক, গদ্দারকে  নিয়ে মিটিং  করছে। বিজেপির নেতাই সারদার নেতা। সবচেয়ে  বড় অভিযুক্ত।এনআরসি প্রসঙ্গে মমতা  বলেন, এভাবে সবাইকে  তাড়িয়ে দিতে চাইছে । আমি মায়ের জন্মদিন জানি না। আমাকে মা কখনও বলেনি। আমিও জানতে চাইনি। এভাবেই পঞ্চাশ বছর আগের তথ্য চাইছে। আবার  বলছে বাংলায়  ক্ষমতায় এসে এখানেও এনআরসি করবে। আমি বলেছি গায়ে হাত দিয়ে দেখুন, যে  হ্যাঙ্গারের তলায় মিটিং  করেছেন ওই হ্যাঙ্গারের তলায় ঢুকিয়ে দেব। বিজেপিকে এনআসি হ্যাংলা বলেও কটাক্ষ করনে মমতা। প্রাকৃতিক  আবহাওয়া খারাপ বলে  নির্ধারিত সময়ের আগেই ময়নাগুড়ির সভা  শুরু হয়। বক্তব্য  পেশ করেই ফলাকাটায় চলে আসেন মমতা। দুটি সভা  থেকে মমতা  বলেন, বাইরের রাজ্য থেকে লোক পাঠিয়েছে বিজেপি। এরা নজরদারি চালাচ্ছেন।     

No comments:

Post a Comment

loading...