Thursday, 4 April 2019

এবার ১৫০জন বিজ্ঞানী আবেদন জানাল জনগণের কাছে ,যা নিঃসন্দেহে ঘুম ওড়াবে বিজেপির

ওয়েব ডেস্ক ৪ঠা এপ্রিল ২০১৯:কোনো রাজনৈতিক দলের নাম তারা তাদের বিজ্ঞপ্তিতে দেয়নি , কিন্তু লেখার ধরণ আর যেই যেই বিষয় নিয়ে ভারতীয় বিজ্ঞানীরা  জনগণের কাছে ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সময় একটু ভেবে দেখার  আর্জি জানিয়েছেন তাতে নিঃসন্দেহে বিজেপির রাতের ঘুম উড়ে যেতে বাধ্য ।তাদের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে  “যারা মানুষকে পিটিয়ে মারে, যারা মানুষকে নিগ্রহ করে, তাদের ভোট দেবেন না। অসাম্য, চোখরাঙানি, বৈষম্য, যুক্তিবিমুখতার বিরুদ্ধে ভোট দিন” – সাধারণ মানুষের এই আবেদন করেছেন অন্তত ১৫০ জন বিজ্ঞানী। তথ্যাভিজ্ঞ মহলের প্রশ্ন, বিজ্ঞানীদের এই আর্জি কি বিজেপির বিরুদ্ধে।
এক সপ্তাহ আগে ১০৩ জন চলচ্চিত্রনির্মাতা বিজেপিকে ভোট না দেওয়ার জন্য জনগণের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। গত সোমবার ২৩১ জন লেখক ‘ঘৃণার রাজনীতি’ পরিত্যাগ  করার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে আর্জি জানিয়েছিলেন। এ বার এগিয়ে এলেন বিজ্ঞানীরা।
আবেদন করা হয়েছে শিক্ষাবিদ, সমাজকর্মী, বিজ্ঞানী এবং আইনজীবীদের সংগঠন ইন্ডিয়ান কালচারাল ফোরামের তরফে। ওই আবেদনে সই করেছেন ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউটস অব সায়েন্স এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ (আইআইএসইআর), দ্য ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউট (আইএসআই), অশোকা ইউনিভার্সিটি, দ্য ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস (এনসিবিএস) এবং দ্য ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (আইআইটি) সহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানীরা ইন্ডিয়ান কালচারাল ফোরামের ওয়েবসাইটে পোস্ট করা ওই বিবৃতিতে তাঁরা বলেছেন, “যারা মানুষকে পিটিয়ে মারে অথবা নিগ্রহ করে, ধর্ম-জাত-লিঙ্গ-ভাষা-অঞ্চলের ভিত্তিতে বৈষম্য করে তাদের খারিজ করুন। যারা এ ধরনের আচরণকে প্রশ্রয় দেয় তাদের বাতিল করুন…। যে পরিবেশে  বিজ্ঞানী, সমাজকর্মী আর যুক্তিবাদীদের পিছনে লাগা হয়, তাদের হয়রান করা হয়, ভয় দেখানো হয়, তাদের কাজ করতে দেওয়া হয় না, তাদের জেলে পোরা হয়, এমনকি হত্যাও করা হয়, সেই পরিবেশ আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ নয়…। যুক্তিবাদী, সাক্ষ্যপ্রমাণ-ভিত্তিক জনগণের আলোচনাকে হেয় করার ব্যাপারটা আমাদের রুখতেই হবে। সমস্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ, যুক্তি, পালটা যুক্তি ভালো ভাবে বিবেচনা করে, বিচক্ষণতার সঙ্গে ভোট দেওয়ার জন্য আমরা সমস্ত নাগরিকের কাছে আবেদন জানাচ্ছি। বৈজ্ঞানিক মানসিকতার যে সাংবিধানিক দায়বদ্ধতা আমাদের রয়েছে তা স্মরণে রাখার জন্য সমস্ত নাগরিকের কাছে আমরা আবেদন করছি।” 

No comments:

Post a Comment

loading...