Thursday, 11 April 2019

মাথা উঁচু করে বাঁচতে গেলে ৪২সে ৪২ টাই দরকার বলে মনে করেন ফিরহাদ হাকিম

ওয়েব ডেস্ক ১১ই এপ্রিল ২০১৯:দেশে এক অস্থিরতার বাতাবরণ চলছে বিগত পাঁচ বছর ধরে । মোবলিংচিঙের মতো ঘটনা যেমন হামেশায় ঘটে গেছে , তেমনি উগ্র হিন্দুত্ববাদ মাথা ছাড়া দিয়ে উঠেছে । বেকারত্ব দ্রুত গতিতে বেড়ে গেছে যেখানে কমবার কথা ছিল , কারণ বিজেপি সরকারে আসার আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বছরে ২ কোটি বেকারকে চাকরি দেওয়া হবে । সেগুলো জুমলা ছাড়া কিছুই নয় , এটা প্রমাণিত । তাই যাদবপুর কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী হয়ে প্রচার করতে এসে মেয়র ফিরহাদ হাকিম বললেন এবারকার লোকসভা ভোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খাতায় ৪২ সে ৪২ টা আসনই যেন আসে ।প্রসঙ্গত  দেশে মাথা উঁচু করে বাঁচতে হলে মমতা ব্যানার্জিকে ভোট দিন।
ভাঙড়ের কলেজ মাঠে যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর সমর্থনে এক জনসভায় এসে এ কথাই বললেন পুরমন্ত্রী ও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। তিনি এদিন মোদি ও বিজেপি–কে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, ‘‌হিন্দু–মুসলিমকে একসঙ্গে থাকতে হবে। এই লড়াই মোদির সঙ্গে মমতার লড়াই। এই লড়াইয়ে যদি জয় না হয়, তবে এক সম্প্রদায়ের মানুষকে মাথা নীচু করে থাকতে হবে। উত্তরপ্রদেশের মতো। তাই বিজেপি–কে এই রাজ্যে পা রাখতে দেব না।’‌মিমিই সাংসদ হবেন, এ কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘‌বারবার মিমি আপনাদের কাছে আসবেন। মনে করতে হবে যেন এখানে লোকসভার প্রার্থী মিমি নন, মমতা ব্যানার্জি।’‌ মঙ্গলবার বিকেলের এই সভায় ছিলেন সাংসদ শুভাশিস চক্রবর্তী, মন্ত্রী রেজ্জাক মোল্লা, কাইজার আহমেদ, আরাবুল ইসলাম, নান্নু হোসেন প্রমুখ। এদিনের সভা থেকে নরেন্দ্র মোদিকে গব্বর সিং বলে কটাক্ষ করে ফিরহাদ বলেন, ‘‌রোজার মাসে ভোট। কেউ শরীর খারাপ করে বসে থাকবেন না। রমজান মাসে ভাল কাজ করতে হয়। সেই ভাল কাজ হল, যারা মানুষে–মানুষে বিভেদ করছে তাদের তাড়িয়ে দেওয়া।’‌ ‘‌আয়ুষ্মান’‌ প্রকল্প নিয়ে মন্ত্রী কেন্দ্রকে এক হাত নিয়ে বলেন, ‘‌প্রধানমন্ত্রী এখন মেডিক্লেমের এজেন্ট হয়েছেন। বাংলায় এই প্রকল্পের দরকার নেই। হাসপাতালে গেলে বাংলায় সব ফ্রি।’‌ তিনি আরও বলেন, ‘‌মোদি সরকার ভারতের গণতন্ত্র, সার্বভৌমত্ব ও ধর্মনিরপেক্ষতাকে বিসর্জন দিয়েছে। একদিকে মায়াবতী–অখিলেশকে ভয় দেখিয়ে গণতন্ত্র ধ্বংস করতে চাইছে। সিবিআই এবং ইডি–র ভয় দেখাচ্ছে, অন্যদিকে এনআরসি–র নামে ৪০ লক্ষ বাঙালিকে অসম ছাড়তে বাধ্য করা হচ্ছে। ধর্মনিরপেক্ষতার নামে গুজরাটে মানুষকে খুন করেছে। তাই ভারতে মাথা উঁচু করে বাঁচতে গেলে মমতাকে ভোট দিন।’‌ এদিনের সভায় ‌বক্তব্য পেশ করার পাশাপাশি গানও শোনান তারকা প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী। কাইজার আহমেদ তাঁর বক্তব্যে ভাঙড়ের উন্নয়নের কাজ ত্বরান্বিত করার আবেদন জানান। এবারকার ভোট হতে যাচ্ছে ঐতিহাসিক ভোট , যেখানে মোদীজি থাকবেন না চলে যাবেন নির্বর করছে ১৩০কোটি ভারতীয়র ওপরে ।    

No comments:

Post a Comment

loading...