Thursday, 16 May 2019

মমতা বললেন " নির্বাচন কমিশনের জন্য দুঃখ হয়”, কিন্তু কেন ? পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ১৬ই মে ২০১৯:অশান্তি প্রতিটা রাজ্যেই আছে তার মানে এই নয় ৩২৪ ধারা প্রতিটা রাজ্যে লাগা করেছে নির্বাচন কমিশন ।কিন্তু বাংলায় এতো তরিঘরি সিদ্ধান্ত কেন নিলেন নির্বাচন কমিশন এখন সেটাই লাখ টাকার প্রশ্ন ।প্রসঙ্গত কলকাতায় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শোকে কেন্দ্র করে অশান্তির কারণে শেষ দফারের সময়সীমা কমিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বৃহস্পতিবারের মধ্যে প্রচার শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “নির্বাচন কমিশনের জন্য আমার দুঃখ হয়”।
শুক্রবার বিকেল ৩টে পর্যন্ত সময় থাকলেও বৃহস্পতিবার রাত ১০টা পর্যন্ত সময় দিয়েছে কমিশন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রীর সুবিধার জন্য এই পদক্ষেপ করা হয়েছে। রাজ্যে দুটি সভা রয়েছে তাঁর। দেশের মধ্যে এই ধরণের সিদ্ধান্ত এই প্রথম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিষিদ্ধ করার আবেদন জানিয়ে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয় বিজেপি। তার কয়েকঘন্টা পরেই এই সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। বিজেপির বিরুদ্ধে অশান্তির অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয় তৃণমূল কংগ্রেসও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ, বাংলার সংস্কৃতি, ইতিহাস না জেনে বাইরে থেকে গুণ্ডাবাহিনী নিয়ে এসে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে বাংলার মানুষকে অপমান করেছেন অমিত শাহ। অন্যদিক, দোষীদের ছেড়ে দিয়ে একই কাজ করেছে নির্বাচন কমিশন।তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের তরফে, সংবিধানের ৩২৪ নম্বর ধারা প্রয়োগ করে প্রচারের সময়সীমা কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তের কোনও ভিত্তি নেই। তাঁর কথায়, “বাংলার আইন শৃ্ঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে কোনও সমস্যা নেই”।

No comments:

Post a Comment

loading...