Saturday, 22 June 2019

বীজপুরে আলো দেখাচ্ছেন তৃণমূলের আলোরাণী সরকার

ওয়েব ডেস্ক ২২শে  জুন ২০১৯: এক সময়  কালাকার স্ট্রিটের রাস্তায় বসে  যিনি  রেলের টিকিট বিক্রি করতেন , তার উত্থান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরেই ।  আজ তিনি  জার্সি পরিবর্তন করে বিজেপিতে । কে কালাকার স্ট্রিটে এক সময় রেলের টিকিট বিক্রি করতেন ? নামটা বলার জন্য কোনো পুরস্কার নেই , তবে মুকুল রায়, ও তার পুত্র বিজেপিতে চলে গেলেও কাঁচরাপাড়া তথা বিজ্পুরের মানুষ শ্রীমতি আলোরানী সরকারের পাশেই আছেন । সুভরাংশু   রায় বিজেপিতে নাম লিখিয়ে ফেললেও  বিজ্পুরের প্রতিটা ওয়ার্ডে ছেয়ে গেলেন তৃণমূলের লড়াকু নেত্রী  হিসেবে পরিচিত আলোরানী সরকার । প্রতিটা ওয়ার্ডে তিনি নিজে সামনে দাঁড়িয়ে তৃণমূলের পতাকা লাগান ।

যে সব জায়গাতে তৃণমূলের পতাকা বিজেপি সরিয়ে দিয়েছিল অন্যায়ভাবে সে সব জায়গাতেও  শ্রীমতি আলোরানী সরকার তার দলীয় কর্মীদের নিয়ে তৃণমূলের পতাকা নতুন করে লাগান।তাকে যোগ্য সহযোগিতা করেছে এলাকার মানুষ আর তৃণমূলের কর্মীরা  ।  ওয়ার্ডের প্রতিটা "পেনিট্রেটিভ জোন " তিনি ঘুরে দেখেন , এবং প্রতিটা জায়গাতেই তিনি তৃণমূলের প্রভাব বিস্তার করেন । পতাকা লাগানোর সাথে সাথে তিনি জনসংযোগও  বাড়ান ।প্রসঙ্গত এই কিছুদিন আগে তার বাড়িতে তৃণমূলের শীর্ষ স্থানীয় নেতা মন্ত্রীরা বৈঠকে উপস্থিত হয়েছিলেন বলে তার বাড়ি বিজেপি কর্মীরা ঘেরাও  করে, সঙ্গে চলে ব্যাপক ইটবৃষ্টি , কিন্তু তাতেও দমে না গিয়ে ওয়ার্ড ভিত্তিক তৃণমূলের প্রচার তিনি নিজের কাঁধে তুলে নেন । তার সাথে যেই জনজোয়ার শামিল হয়েছিল তাতে একটা জিনিসই প্রমান করে , মুকুল রায় ও তার পুত্র সুভরাংশু রায় বিজেপিতে চলে গেলেও তৃণমূলের কোনো ক্ষতি হয়নি । 

No comments:

Post a Comment

loading...