Wednesday, 19 June 2019

মধুর আশায় যারা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গেছেন তাদের স্বপ্নে প্রবল ধাক্কা, দলের মধ্যেই ব্রাত্য

ওয়েব ডেস্ক ১৯ই  জুন ২০১৯:  একরাশ স্বপ্ন নিয়ে যারা যেসব তৃণমূল  কর্মীরা বা কাউন্সিলররা বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন তারাই এখন নিজেদের মান সন্মান বাঁচাতে ব্যস্ত ।  তাদেরকে বিজেপির মধ্যেই দ্বিতীয় সারির নাগরিকের স্থান দেওয়া হয়েছে যেটা খুবই বেদনা দায়ক তাদের পক্ষে । মুখে যতই এই সব তৃণমূল ফেরত বিজেপি কর্মীরা বলছেন সব ঠিক আছে , কিন্তু আদতে কোনো কিছুই যে ঠিক নেই সেটাই বার বার প্রমাণিত হচ্ছে। কেউ কেউ নিজেদের রাগটাও আর চেপে রাখতে পারছেননা । ঝগড়া ‘‌আসল’‌ বিজেপি বনাম ‘‌তৃণমূল–ফেরত’‌ বিজেপি–‌র। দিল্লির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের মনোগত বাসনা, ‘‌দল ভাঙাও, দল ভাঙাও’‌।‌ রাজ্যের ‘‌পুরনো’‌ বিজেপি সদস্যরা এতে মোটেই স্বস্তি পাচ্ছেন না। কিন্তু দল বাড়াতে গেলে, অন্য দল থেকেই তো আনতে হবে!‌ এরই মাঝে ক্ষোভের চাপা সুর বেজে উঠেছে।
পুরনো বিজেপি কর্মী–সদস্যদের মনে একটা বড় আশঙ্কা জেগে উঠেছে। তঁাদের মূল বক্তব্য, ‘‌আমরা এত দিন পড়ে পড়ে মার খেয়ে দলটা করেছি। আরও আগে বিজেপি এতটাই দুর্বল ছিল যে উপেক্ষা আর অবহেলা ছাড়া আমরা কিছু পাইনি। একটু একটু করে শক্তি বাড়ার পর আমাদের কপালে জুটেছে মার। অন্য দলের কর্মীরা মারধর করেছেন। পুলিশি নিগ্রহও বাদ যায়নি। এখন শক্তি বৃদ্ধি হয়েছে। আমরা ১৮ লোকসভা আসন পেয়েছি। এখন মধু খাওয়ার লোভে অন্য দল থেকে অনেকেই বিজেপি–‌তে আসতে চাইছেন। আর নেতৃত্ব তঁাদের যত আদর করছেন, আমাদের প্রতি অনাদর ততই বাড়ছে।’‌‌  ই সব ‘‌পুরনো’‌ বিজেপি কর্মীর মনে আরও গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন আছে। এবার লোকসভায় অর্জুন সিং, সৌমিত্র খঁা, অনুপম হাজরার মতো মানুষ বিজেপি–‌তে যোগ দিতে–‌না–‌দিতেই লোকসভার বিজেপি–‌র টিকিট পেয়ে গেলেন। এঁরা টিকিট পাবেন, এই প্রতিশ্রুতি পেয়ে বিজেপি–‌তে যোগ দিলেন। ‘‌তা হলে আমরা এত দিনে কী করলাম!‌ আমাদের সব পরিশ্রম, নিষ্ঠা জলে গেল!‌’‌ সুদিন দেখে বিজেপি–তে যোগদানের হিড়িক পড়েছে। দলে রোজই নতুনেরা যোগ দিচ্ছেন। এমনকী রাজ্য অফিসের সামনে মঞ্চ বেঁধেই রাখা হয়েছে। সেই মঞ্চে আজ এ–‌জেলা কাল ও–‌জেলা, আজ এই পঞ্চায়েত তো কাল ওই পুরসভা থেকে বিজেপি–‌তে আসছেন। পুরনো যঁারা, তঁারা ভাবছেন, বিধানসভা ভোট আসছে। তখন কী হবে?‌ তখনও কি নতুনদের দাপটে আমরা টিকিট পাওয়া থেকে বঞ্চিত হব?‌  গোলমাল যে লেগেছে এই বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই , আর বিজেপিতে যোগ দিয়ে তৃণমূলের একাংশ কর্মীরাই যে কপাল চাপড়াচ্ছেন সেটা বলাই বাহুল্য ।

No comments:

Post a Comment

loading...