Monday, 24 June 2019

মিথ্যে আশ্বাস দিয়ে গ্রামবাসীদের কাছ থেকে ভোটে জিতে এখন গ্রামবাসীদেরই চিনতে পারছেননা বিজেপি প্রধান

ওয়েব ডেস্ক ২৪শে  জুন ২০১৯: কত আশা নিয়ে উত্তর দিনাজপুরের বিজেপি প্রধানকে গ্রামবাসীরা জিতিয়ে এনেছিলেন , শুধু মাত্র ১০০ দিনের কাজের জন্য ।  আর বিজেপি প্রধান  রুনা বালা দেব শর্মা ভোটে জেতার পর সেই গ্রামবাসীদের  জন্য কিছুই  করছেননা । এই নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়ছেন গ্রামবাসীরা ।  প্রসঙ্গত উত্তর দিনাজপুরে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় বিজেপির নেতা কর্মীরা তাদের গ্ৰামে ভোট চাইতে এসে কথা দিয়েছিলেন, তারা যদি পঞ্চায়েত দখল করতে পারে তাহলে তাদের গ্ৰামেই বেশি করে ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হবে পঞ্চায়েতের মাধ্যমে। তাদের আর কাজের জন্য ভিন রাজ‍্যে যেতে হবে না। সেই আশা নিয়ে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার পর গ্ৰাম পঞ্চায়েত দখল করে বিজেপি। প্রধান হন বিজেপির রুনা বালা দেব শর্মা আর উপপ্রধান হন কংগ্রেসের সৌম হাসদা। কিন্তু নির্বাচনের পর আর ‘তোমার দেখা নাই রে’। গ্ৰামের মানুষদের আর আমরা চিনি না। ওরা চুলোয় যাক। উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ গ্ৰাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও উপপ্রধানের বিরুদ্ধে এমনটাই অভিযোগ গ্ৰামবাসীদের। পাশাপাশি এও অভিযোগ উঠেছে যে, এই গ্ৰামপঞ্চায়েতের কাজের বেশিরভাগটাই বিজেপির প্রধান কংগ্রেসের জয়ী সদস‍্যদের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করে দিচ্ছেন।
ফলে বিজেপির বিভিন্ন গ্ৰামের সমর্মকরা ক্ষুব্ধ মুস্তফানগর গ্ৰামপঞ্চায়েতের প্রধান রুনা বালা দেব শর্মার উপর। জানা গিয়েছে, মুস্তাফানগর গ্ৰামপঞ্চায়েতের চাইপাড়া, রায়পুরে প্রায় তিনশোর মতো এমন মানুষ রয়েছেন যাদের ১০০ দিনের জবকার্ড রয়েছে। কিন্তু তারা একদিনও কাজ করতে পারেনি বলে অভিযোগ। এরা মূলত বেশিরভাগ কৃষিজীবী ও দিনমজুর।গ্ৰামবাসীরা জানান, অবিলম্বে যদি তাদের কাজের ব‍্যবস্থা না করা হয় তবে গ্ৰামের মানুষরা একত্রিত হয়ে মুস্তাফানগর গ্ৰামপঞ্চায়েত ঘেরাও করবেন। সেক্ষেত্রে তারা দেখবেন না কারা ক্ষমতায় রয়েছেন। তাদের কাজ চাই।জাতি ধর্ম নির্বেশেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রামবাসীদের  জন্য যা কাজ করেছেন তার যে কোনো তুলনা হয়না সেটাই উত্তর দিনাজপুরের গ্রামবাসীরা বুঝতে পারছেন । তারা বিজেপিকে এনে আদতে খেয়াল কেটে কুমিরই এনেছেন সেটাই এখন তাদের অভিমত। 

No comments:

Post a Comment

loading...