Wednesday, 19 June 2019

দুর্নীতিগ্রস্ত লোকের মুখোশ খুলে দেওয়ার ক্ষমতা রাখেন মমতা, সে নিজের দলেরই হোকনা কেন , আলিমুদ্দিন দেখছেন তো ?

ওয়েব ডেস্ক ১৯ই  জুন ২০১৯: মমতা মন্দ্যোপাধ্যায় এক কথার মানুষ উনি যা বলেন তাই করেন, মানুষের স্বার্থে নিজের দুর্নীতিগ্রস্ত  দলীয় সৈনিককেও শাস্তি দিতে পিছপা হননা । মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর যেরকম কথা সেরকম কাজ । প্রসঙ্গত কাটমানি নিয়ে মনটা বন্দ্যোপাধ্যায় কড়া অবস্থান নিয়েছিলেন তারই পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার মালদহ জেলার রতুয়া থানার মহানন্দাটোলার প্রাক্তন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান সুকেশ যাদব কে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আজকে তাকে চাঁচল আদালতে তোলা হয়। পুলিশ সাত দিনের জন্য নিজেদের হেফাজতে চেয়ে আদালতের কাছে আবেদন করেছেন।
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে রতুয়া ব্লকের বিডিও রতুয়া থানাতে এফআইআর করেছিলেন। তৎকালিন প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগ নির্মল বাংলা মিশনের মাধ্যমে গ্রামে গ্রামে যে শৌচাগার তৈরীর কথা ছিল প্রধান এই শৌচাগার তৈরীর টাকা আত্মসাৎ করেছে।মালদহের পুলিশ সুপার অলোক রাজরিয়া বলেন, প্রাথমিক ভাবে প্রায় ৫০০টি শৌচালয়ের কথা উল্লেখ থাকলেও এই সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। সেই জন্য আমরা প্রধান কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিতে চায়। জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী মৌসম নূর বলেন, আমাকে সদ্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্তে বিরুদ্ধে দল যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেবে।প্রশ্ন জাগে সিপিএমের জমানায় কটা দুর্নীতি গ্রস্ত নেতাদের শাস্তি দেওয়া হয়েছিল ? উত্তর একটাই , সব ধামাচাপা দেওয়া হয়েছিল । 

No comments:

Post a Comment

loading...