Thursday, 27 June 2019

একজন মহিলা ওসিকেও হেনস্তা করতে ছাড়লনা বিজেপি কর্মীরা

ওয়েব ডেস্ক ২৭শে  জুন ২০১৯: যেরকম কথা সেরকম কাজ । দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন পুলিশকে পেটানোর  জন্য । কিছুদিন পরে হলেও হলেও বিজেপি কর্মীরা তাই করলেন । তও আবার এক মহিলা পুলিশ কর্মীকে । প্রসঙ্গত বুধবার খেজুরিতে বিজেপি কর্মী–সমর্থকদের হাতে চরম হেনস্থী হল মহিলা ওসি–‌র। বুধবার এই ঘটনাকে কেন্দ্রে করে খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায় পুলিশ এবং বিজেপি কর্মীদের মধ্যে। রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় হেঁড়িয়া। এই ঘটনায় মহিলা ওসি–‌র পাশাপাশি কঁাথির এসডিপিও মহম্মদ এমএম হাসান, কঁাথি মহিলা থানার ওসি অনুষ্কা মাইতি, খেজুরি থানার ওসি গোপাল পাঠক–সহ ৬ পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন। প্রত্যেককে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে স্থানীয় হাসপাতালে। অনুষ্কা মাইতি পুলিশের উর্দিতেই ছিলেন। মাথায় ছিল হেলমেট। তাঁকে ঘিরে ধরে ধাক্কা দিতে তাকে বিজেপি কর্মীরা।
এদিন সকালে মিছিল নিয়ে খেজুরিতে ঢোকার আগে হেঁড়িয়া পৌঁছন ভারতী ঘোষ। সেখানেই পুলিশ তঁাদের আটকে দেয়। তখনই গাড়ি থেকে নেমে কর্মী–সমর্থকদের নিয়ে ব্যারিকেড ভেঙে এগোনোর চেষ্টা করেন তিনি। তখন পুলিশের সঙ্গে বিজেপি–র কর্মীদের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার ভি সলেমান নেশাকুমার বলেন, ‘‌কণ্ঠিবাড়ির পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে। বিজেপি জনসভা করলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে, সেই কারণেই বাধা দেওয়া হয়েছিল। এই ঘটনায় আমাদের একজন মহিলা ওসি–‌কে চরম হেনস্থা করা হয়েছে। মোট ৬ জন পুলিশকর্মী আহত হয়েছেন। ভিডিও ফুটেজ খতিয়ে দেখে আমরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’‌ বিদ্যজ্জনেদের একাংশের অভিমত বিজেপির শক্তি বাংলায় বৃদ্ধি হওয়ার দরুন পুলিশের গায়েও হাত পড়ছে যা অত্যন্ত নিন্দনীয় ।

No comments:

Post a Comment

loading...