Sunday, 30 June 2019

একের পর এক তৃণমূল নেতা খুন হচ্ছেন , এবার বান্ডেলের নেতা দিলীপ রাম, আঙুল বিজেপির দিকে

ওয়েব ডেস্ক ৩০শে  জুন ২০১৯: এ রাজ্য থেকে লোকসভা ভোটে বিজেপির ভালো ফল করার পর থেকেই রাজ্যে অশান্তি পরিবেশ তৈরী হয়েছে । বাম ক্যাডারদের জার্সি বদল করে বিজেপিতে যোগ দেওয়াতেই বিজেপির আগ্রাসী মনোভাব অনেকটাই বেড়েছে , আর তার সৌজন্যে তৃণমূলের একের পর এক কর্মী নেতা নিহত হচ্ছেন । এবার  পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে বান্ডেলে তৃণমূল নেতা দিলীপ রামকে বান্ডেল স্টেশন চত্বরে খুন করা হল । এর প্রতিবাদে  আজ তৃণমূল কর্মীরা ব‍্যান্ডেল- চুঁচুড়া বনধের ডাক দিয়েছেন। রবিবার সকাল থেকে ব্যান্ডেল ও চুঁচুড়ায় অধিকাংশ দোকান বন্ধ। ব্যান্ডেল বাজার, বালির মোড়, চকবাজার, রবীন্দ্রনগর বাজার ও খড়ুয়া বাজার খোলেনি। মাছ থেকে সবজি বাজার বন্ধ। দু-একটি জায়গায় চায়ের দোকান খোলা রয়েছে। গতকাল থেকে চুঁচুড়া বনধের কথা প্রচার করছিল তৃণমূল কংগ্রেস। চুঁচুড়া প্রধান বাসস্ট্যান্ড থেকে কোনও দূরপাল্লার বাস বা ট্রেকার ছাড়েনি। বিক্ষিপ্তভাবে কিছু টোটো বা অটো চলছে।

এদিন সকাল সাড়ে নটা নাগাদ ব্যান্ডেল মোড় থেকে স্টেশন রোড হয় স্টেশনে আসছিলেন দিলীপ রাম। পাঁচ নম্বর প্লাটফর্ম দিয়ে ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস যাওয়ায় লাইনের পাশই দাঁড়িয়েছিলেন দিলীপ। অনেক যাত্রীও ছিলেন তার সঙ্গে। সেইসময় পেছন থেকে তাঁকে গুলি করে দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন তিনি। প্রথমে চুঁচুড়া হাসপাতাল ও পারে তাঁকে আনা হয় কলকাতায়। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়।এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১ জনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, দিলীপ রামকে খুন করার জন্য রীতিমতো রেইরি করা হয়েছিল। আততায়ীরা ছিল যাত্রীদের মধ্যেই। কয়েকদিন আগে ঝাড়খণ্ড থেকে ফোনে খুনে হুমকি দেওয়া হয় দিলীপ রামকে।এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১ জনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, দিলীপ রামকে খুন করার জন্য রীতিমতো রেইরি করা হয়েছিল। আততায়ীরা ছিল যাত্রীদের মধ্যেই। কয়েকদিন আগে ঝাড়খণ্ড থেকে ফোনে খুনে হুমকি দেওয়া হয় দিলীপ রামকে।

No comments:

Post a Comment

loading...