Tuesday, 9 July 2019

যে সব বিজেপি নেতারা কাটমানি নিয়ে তৃণমূলকে দোষারোপ করতো , এখন তাদের বিরুদ্ধেই কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ

ওয়েব ডেস্ক ৯ই জুলাই  ২০১৯:সততার প্রতীক  মমতা , তিনি যখন কাটমানির প্রসঙ্গ উত্থাপন করেছিলেন , তখন বিজেপির তাবড় তাবড় নেতারা কটূক্তি করতে ছাড়েননি তৃণমূল দলটিকে । মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হিম্মত আছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার , সেই সাহসটাও যদি অন্য কোনো দল দেখাতো, এখন এটাই ট্রোলড হচ্ছে সর্বত্র । এরই ফাঁকে বিজেপি সায়ন্তন বসুর বিরুদ্ধে কাটমানি খাওয়ার অভিযোগ তুললেন বিজেপির কর্মীরাই । বিজেপি কর্মীরা পোস্টারে অভিযোগ করেছেন নির্বাচনী খরচ বাবদ প্রাপ্য ২ কোটি টাকা থেকে কাটমানি খাওয়ার।
খোদ বিজেপি কর্মীদের নামে পোস্টার ঘিরে বসিরহাটে বিজেপি–র অন্দরে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। পোস্টারে লেখা হয়েছে,‌‌ ‘‌বিজেপি–‌র সায়ন্তন বসুর স্বীকারোক্তি, লোকসভা ভোটে টাকা পেয়েছি ২ কোটির বেশি। তবে কেন টাকা পাননি বুথকর্মীরা?‌ সায়ন্তন বসু, গণেশ ঘোষ, দুলাল রায়, ভবতোষ সরকার, সঞ্জীব সরকার–সহ আরও অনেকে নিয়েছেন কাটমানি। ভাগ পেয়েছেন রাজ্যনেতা সুব্রত চ্যাটার্জি ও কর্মিবৃন্দ।’‌  এই পোস্টার বসিরহাট শহরের সর্বত্র লাগানো হয়েছে। তৃণমূল নেতা ফিরোজ কামাল গাজি বলেন, ‘আসলে কাটমানি কারা নিয়েছেন, বিজেপি–র পোস্টারে তা পরিষ্কার বলা হয়েছে। দলীয় গন্ডগোল ঠেকাতে এবং মুখ ঢাকতে নেতারা এখন তৃণমূলের ওপর পোস্টারের দায় চাপানোর চেষ্টা করছেন।’ বিজেপি–র এক গোষ্ঠীর অভিযোগ, বসিরহাট লোকসভার প্রার্থী তথা বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু নির্বাচনী লড়াইয়ের জন্য দলের কেন্দ্রীয় তহবিল থেকে ২ কোটি টাকার বেশি পেয়েছেন। সেই টাকার অধিকাংশ নির্বাচনের কাজে খরচ না করে জেলা সভাপতি গণেশ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক দুলাল রায়–সহ কয়েকজন নেতার পকেটে ঢুকেছে। টাকা বুথকর্মী পর্যন্ত পৌঁছয়নি। তার কোনও হিসাবও পেশ করা হয়নি।অন্যদিকে, বসিরহাট পুরসভার ১৪ নম্বর ওযার্ডের বিজেপি–র কাউন্সিলর তপন দেবনাথের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ঘর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে কয়েক লক্ষ টাকা কাটমানি নিয়েছেন তিনি। বিজেপি–র বুথ সভাপতি রণজিৎ দাশগুপ্ত বলেন, ‘উপভোক্তাদের ব্যাঙ্কের পাশবই, আধার কার্ড এবং ভোটার কার্ড নিয়ে রাখা হয়েছে। তপনকে কাটমানি দিতে না পারায় অনেকে ঘর পাননি।’ এ বিষয়ে অবশ্য তপনবাবু  বলেন, ‘এ ধরনের অভিযোগ ভিত্তিহীন। আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে।’ কথা হচ্ছে , যা রটে তা কিছুটা বটে । তাই নয় কি ?

No comments:

Post a Comment

loading...