Sunday, 14 July 2019

সব্যসাচীকে বিজেপিতে নেওয়ার ব্যাপারে বিজেপির অন্দর মহলেই কোনঠাসা মুকুল রায়

ওয়েব ডেস্ক ১৪ই জুলাই  ২০১৯: সব্যসাচী দত্তকে বিজেপিতে নেওয়ার ব্যাপারে এক পায়ে খাড়া মুকুল রায় , কিন্তু তাই এই ইচ্ছেকে তীব্র বিরোধিতা করছেন দিলীপ ঘোষ সহ একটা লবি । তাদের অভিমত মুখ্যমন্ত্রীকে ধোঁয়াশার মধ্যে সব্যসাচী সিন্ডিকেটের সাথে যুক্ত ছিলেন তাই তাকে দলে নেওয়া মানে বিজেপির ভাবমূর্তি নষ্ট করা । শুধু বিজেপি রাজ্য সভাপতির ঘনিষ্ঠ নেতারাই নন, খোদ আরএসএস রাজ্য নেতৃত্বেরও বিধাননগরের মেয়রের সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা পোষণ করেন। ফলে নিজের ঘনিষ্ঠ অনুগামীকে দলে আনতে গিয়ে মুকুল রায়কে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। যদিও বিধাননগরের মেয়রের সঙ্গে বারংবার বৈঠকেও বসলেও বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কোনও কথা হয়নি বলে দাবি মুকুলের। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, লোকসভা ভোটের আগেই নিজের কাছের মানুষ সব্যসাচী দত্তকে দলে এনে বারাসত লোকসভায় দাঁড় করানোর জন্য উদ্যোগী হয়েছিলেন মুকুল রায়।
কিন্তু তাতে জল ঢেলে দেন বঙ্গের সংঘ নেতারা । বারাসত কেন্দ্রে প্রার্থী করা হয় দীর্ঘদিনের সংঘপ্রচারক মৃণালকান্তি দেবনাথকে। এমনকি বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বকেও সংঘ নেতারা স্পষ্ট জানিয়ে দেন, ‘মৃণালবাবুকে কোনওমতেই সরানো যাবে না। লোকসভা ভোটের পর ফের সব্যসাচীর দলে যোগ দেওয়া নিয়ে জল্পনা ছড়াতেই কার্যত বিদ্রোহ করেন সল্টলেকের বাসিন্দা রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। তিনি রাজনীতি থেকে সন্ন্যাস নেওয়ার হুমকি দিয়েও ফেসবুকে আবেগপ্রবণ একটি লেখা পোষ্ট করেন। সূত্রের খবর অনুসারে আগামী বিধানসভা ভোটে বিধাননগর আসন বিজেপির পক্ষে যথেষ্টই লোভনীয়। লোকসভা ভোটেও ওই আসনে ভালো ফল ছিল বিজেপির। বিধানসভায় এই আসনে দাঁড়াতে পারেন সায়ন্তন বসু ও শমীক ভট্টাচার্যের মত আদি বিজেপি নেতারা। কিন্তু সব্যসাচী দলে এলে গোষ্ঠী রাজনীতির সমীকরণে এবং বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র হওয়ার দৌলতে তিনিই প্রার্থী হয়ে যেতে পারেন বলে আশঙ্কা সায়ন্তন-শমীকদের।তাই নিজেদের অবস্থান ঠিক রাখার জন্যই সাব্যসাচীকে দলে নিতে এতো অনীহা । 

No comments:

Post a Comment

loading...