Sunday, 21 July 2019

'শহীদ দিবসে' দিদির ডাকে প্রখর রৌদ্রেও জন জোয়ারে ভেসে গেল স্বপ্নের শহর - কলকাতা

ওয়েব ডেস্ক ২১ই জুলাই ২০১৯: নিজেদের তৈরি করা রেকর্ড প্রতি বছরই ভেঙে চলেছে  তৃণমূল । গত বছর যা লোক এসেছিল ২১ সে জুলাইয়ে এ বছর তার থেকেও বেশি লোক এসেছে । এতে একদিকে যেমন  তৃণমূল নিজেদের সাফল্য দেখছে অন্য দিকে যারা দেখাশোনার দায়িত্বে আছে তাদের চাপ অনেকটাই বেড়ে গেছে । কেননা যেসব তৃণমূল কর্মীরা দূরদূরান্ত থেকে এসেছে তাদের ঠিক মতো বাড়িতে পৌছিয়ে দেওয়াটাই দলের প্রথম অগ্রাধিকার । প্রসঙ্গত ১৯৯৩ সালের ২১ জুলাই, তৎকালীন বাম সরকারের বিরুদ্ধে, নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা আনার দাবিতে আন্দোলন করেছিল যুব কংগ্রেস। ২১-র বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ফের সেই তিরই তূণীরে ফেরাচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী।
এই মুহূর্তে ধর্মতলায় একুশে জুলাইয়ের সভামঞ্চ থেকে ভাষণ রাখছেন তিনি। প্রসঙ্গত, নির্ধারিত সময়ের আগেই আজ মঞ্চ চত্বরে পৌঁছে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী। সভামঞ্চে উঠে সকলের সঙ্গে কথা বলার পরই বক্তব্য রাখতে শুরু করেন তিনি। প্রথমেই মমতা বলেন, আসার সময় দেখছিলাম, রেড রোডে ২-৩ লক্ষ লোক দাঁড়িয়ে আছে। মনে হচ্ছে, আরও একটা ব্রিগেড হচ্ছে।এরপরই উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমি আপনাদের অনেক ধন্যবাদ জানাই, অনেক কষ্ট করে আপনারা এই সভায় এসেছেন। তারপর বলেন, ‘কেউ মিটিং ছেড়ে যাবেন না। যতক্ষণ আমি কথা শেষ করি। এখন পৌনে ১টা বাজে। অনেকে দূরদূরান্ত থেকে এসেছেন। কেউ বাসে এসেছেন। কেউ ট্রেনে এসেছেন। আবার ট্রেন থেকে নামার পর হেঁটে বাস ধরেছেন। পুরুলিয়া, বাঁকুড়া থেকে আসতে ৯-১০ ঘণ্টা গাড়িতে লেগে যায়। বসিরহাট, সন্দেশখালি, সাগর থেকে আসতে গেলে ৪-৫ ঘণ্টা লাগে।’ সেইসঙ্গে, বিজেপির বিরুদ্ধে সভা পণ্ড করার অভিযোগও করেন তিনি।বলেন, ‘অনেক জায়গায় ট্রেন বন্ধ করে দিয়েছে, খবর আসছে। বিজেপি ভাবছে সরকারে আছে, ট্রেন ওদের আন্ডারে।’ এখানেই না থেমে তিনি আরও বলেন, ‘লক্ষ্য রাখছি, লোকসভার নির্বাচন হল চিটিং করে। ইভিএম প্রতারণা করে। সিআরপিএফ দিয়ে। সেন্ট্রাল পুলিশ দিয়ে। অনেক রকমভাবে ভোট করে কিছু আসন পেয়েছে। সংখ্যাগরিষ্ঠ সিট পায়নি। ১৮টা পেয়েছে। তিন-চারটে সিটে একহাজার ভোটে জিতেছে। কাল ভোট হলে টোটালটা উল্টে যাবে।’ সিপিএমকেও বিঁধতে ছাড়েননি মমতা। তিনি বলেন, ‘সিপিএমের উদ্দেশ্যে বলি, ৩৪ বছর ধরে অত্যাচার করে এখন বিজেপিতে গিয়ে সন্ত্রাস করছে।’ শুধু তাই নয় তিনি আরো অভিযোগ করেন কয়েকটি জায়গায় ট্রেন বাতিল করেছে কেন্দ্র সরকার যাতে তৃণমূল কর্মীরা আসতে না পারে ২১শে জুলাইয়ের সভায় । এই ভাবে যে তৃণমূলকে আটকানো যাবেনা সেটা প্রতিটা মানুষের মতো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পর্যন্ত বিশ্বাস করে । 

No comments:

Post a comment

loading...