Monday, 1 July 2019

তৃণমূলের নাম করে যারা নিজেদের আখের গুছিয়েছে , তারাই বিজেপিতে যাচ্ছে , আরএসএস-এর পত্রিকায় উঠে এলো, চিন্তার ভাঁজ বিজেপির

 ওয়েব ডেস্ক ১লা জুলাই  ২০১৯: সিপিএম থেকে তৃণমূল থেকে, দলে দলে লোক নিজেদের দলে ঢোকানোর খেসারত ইতিমধ্যেই দেওয়া শুরু হয়ে গেল বিজেপির । কর্পোরেট জগতের মতো অমিত শাহ 'টার্গেট ফিক্স' করে দিয়েছিলেন বিজেপি কর্মীদের । তার নির্দিষ্ট সংখ্যক লোক চাই বঙ্গ বিজেপিতে , অব্যশই শক্তি বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে , কিন্তু দেখা যাচ্ছে যারা তৃণমূলের  'লোগো' ব্যবহার করে নিজেদের আখের গুছিয়ে নিয়েছে , তারাই নতুন করে টাকা কামানোর আশায় বিজেপিতে যোগ দিচ্ছে ।
আর এটাই মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে আরএসএস সহ বিজেপির ওপর তলার  নেতৃত্বের ।প্রসঙ্গত আরএসএসের প্রভাবিত পত্রিকার ১৭ জুন সংখ্যার প্রচ্ছদ কাহিনি হল – ‘কতটা বেনোজল আটকাতে পারবে বিজেপি’। আর সেখানে প্রকাশিত সম্পাদকীয় নিবন্ধের বক্তব্য, ‘দিন পরিবর্তনের আভাস পাইতেই আজ যাহারা বিজেপির আশ্রয়ে আসিতে চাহিতেছে, তাহারা সবাই স্বচ্ছ নয়। ইহাদের মধ্যে বেনোজলও আছে। … বিজেপির মতো দল, যাহারা নিজেদের পার্টি উইথ আ ডিফারেন্স বলিয়া প্রচার করে, তাহাদের তো এই বিষয়ে যথেষ্ট সতর্ক থাকাই উচিত’।
বিজেপি সূত্রের খবর,  ‘আদি’ নেতাদের অনেকেই মনে করেন, ‘বহিরাগত’ নেতাদের একাংশ দলের আদর্শকে ‘কলঙ্কিত’ করে স্বার্থসিদ্ধি করছে। ইতিমধ্যেই দলের ভিতরে কয়েকটি সংগঠন তৈরিকে ঘিরে সেই বিতর্ক সামনে এসেছে। যেমন- ‘বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদ’। ‘নব্য’ নেতাদের একাংশ শুক্রবার ওই সংগঠনের সূচনা পর্বে সাংবাদিক সম্মেলন ডেকেও তা বাতিল করেন। বলা হয়, ভাটপাড়া-কাণ্ডের জেরে তা বাতিল হয়েছে। যদিও দলীয় সূত্রের খবর, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা শিবপ্রকাশ ফোন করে এ ধরনের সংগঠন বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন।ব্যাপারটা এখন যে জায়গায় গিয়ে পৌঁছিয়েছে , দেখা যাচ্ছে বিজেপি শক্তি বৃদ্ধি করতে গিয়ে দলের লাগাম বেনোজলেদের হাতে চলে যাচ্ছে , যা খুবই চিন্তার বিষয় । তৃণমূলের ভালো লোক যারা আছে তাদেরকে কিছুতেই বিজেপি দলে টানতে পারছেনা , যেটা আরও চিন্তার বিষয় বিজেপির কাছে । 

No comments:

Post a Comment

loading...