Saturday, 3 August 2019

তৃণমূল কি ভেবে ছিল 'দিদিকে বলো ' কর্মসূচিতে এতো ব্যাপক সাফল্য আসবে ?পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ৩রা অগাস্ট  ২০১৯: উন্নয়ন মূলক কাজ করতে করতেই কোন রাজনৈতিক ব্যক্তি রোল মডেল হয়ে ওঠেন মানুষের কাছে । আর উন্নয়ন শীল কাজকর্ম যারা করে থাকেন তাদের মানুষ বেশির ভাগ টিভির পর্দায় দেখেন, আর সেই সব নেতা মন্ত্রীরা যদি ঘরের দরজার সামনে তাহলে আনন্দের সীমা থাকেনা গ্রামের বা শহরের মানুষ জনদের । প্রসঙ্গত ‘‌দিদিকে বলো’‌ কর্মসূচি ব্যাপক সাড়া ফেলেছে  বাংলা জুড়ে । নেতা–মন্ত্রীদের সঙ্গে পথে নেমে পড়েছেন দলের সাধারণ কর্মী–সমর্থকেরাও। মন্ত্রীদের কাছে পেয়ে সাধারণ মানুষ এতটাই আপলুত যে আগের বাম জমানায়ও এরকম দেখা যায়নি, প্রবীণ মানুষের বক্তব্য , আগের বাম জমানায়ও নেতা মন্ত্রীরা তাদের উঠোনে আসতো, শুধু মাত্র ভোট পাওয়ার আশায় , আর সংগঠন মজবুত করার আশায় , কিন্তু মানুষের সমস্যা কখনোই তারা দূর করার আগ্রহ দেখাতো না  ।
গত শুক্রবার থেকে কয়েকটি জেলায় এই কর্মসূচির সূচনাও হয়েছে। প্রথম দিনেই সাড়া পড়ে গেছে এলাকায়। যেমন মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর, ডোমকল, কান্দি, বেলডাঙায় এদিন শুরু হয় কর্মসূচি। ডোমকলে যুব নেতা সৌমিক হোসেনের উদ্যোগে পথ চলতি মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হয় টিশার্ট, মমতা ব্যানার্জির ফোন নম্বর দেওয়া ভিজিটিং কার্ড, স্টিকার। বেলডাঙায় রেজিনগরের বিধায়ক রবিউল আলমের উদ্যোগে চলে এই কর্মসূচি। পুরুলিয়ার বলরামপুর থানা এলাকায় মাঠে গিয়ে চাষিদের কাছ থেকে চাষের বিষয়ে খোঁজ খবর নেন মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো। মন্ত্রী বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির কর্মসূচি ‘‌দিদিকে বলো’‌ নিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছি।’‌ ‌এদিন সকাল থেকে কালনা ও কাটোয়া দুই মহকুমা জুড়ে শুরু হয় ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি। কালনা ১ নম্বর ব্লকের নান্দাই পঞ্চায়েতের নান্দাই গ্রামে হাজির হন যান মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। দলের নেতা–কর্মীদের নিয়ে দিনভর এলাকায় ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের নানা সমস্যা মন দিয়ে শোনেন তিনি। যতটা সম্ভব সমাধান করেন। নান্দাই গ্রামে রাত্রিবাস করেন স্বপনবাবু। আরেক মন্ত্রী তথা মঙ্গলকোটের বিধায়ক সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি এদিন ‘দিদিকে বলো’ বার্তা ছড়াতে নিজের বিধানসভার সরগ্রাম পঞ্চায়েতের গীধগ্রামে যান। এই ভাবেই দিন ভোর নেতা মন্ত্রীরা মানুষের বাড়ির দরজায় ঘুরে বেড়ান ।মানুষের সমস্যার কথা তারা যে রকম শুনতে পারছেন এসেরকম মানুষের আশীর্বাদও গ্রহণ করছেন ।

No comments:

Post a Comment

loading...