Monday, 5 August 2019

বিজেপি পঞ্চায়েত সদস্যের বাড়িতে মধু চক্র

ওয়েব ডেস্ক ৫ই অগাস্ট  ২০১৯:বাংলায় সবে মাত্র বিজেপি একটু ভালো ফল করেছে বিধানসভা নির্বাচনে , আর তাতেই বিজেপির নিচুতলার কর্মীবৃন্দরা ধরা কে সরা মনে করতে শুরু করেছে ।
অন্তত তাদের আচরণে সেরকমই মনে হচ্ছে ।প্রসঙ্গত গত বুধবার বিজেপি–র স্থানীয় এক পঞ্চায়েত সদস্যর বাড়িতে মধুচক্রের আসর বসেছিল বলে অভিযোগ। দলের কর্মীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে পুলিশ গিয়ে অভিযুক্তদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। যদিও সেই সময় ওই বিজেপি নেতা পলায়নের পথ বেছে নিয়েছিলেন ।
দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হওয়ায় শনিবার সন্ধেয় চন্দ্রকোনা রোডের সাতবাঁকুড়া বিজেপি–র দলীয় কার্যালয়ে বৈঠক ডাকা হয়। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা চলতে থাকে। কিছু বিজেপি নেতা–কর্মী  দলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে যে টাকা খরচ হয়েছিল তার হিসেব চান দলীয় নেতৃত্বের কাছে। আর এতেই চটে যান নেতৃত্ব। এর পরই বাধে তুমুল ঝামেলা । পার্টি অফিসের মধ্যেই হাতাহাতি শুরু হয়। এক গোষ্ঠী অপর গোষ্ঠীর কর্মী–সমর্থকদের মারতে থাকে। শুরু হয় চেয়ার ছোঁড়াছুঁড়ি। ভেঙে দেওয়া হয় কার্যালয়ের আসবাবপত্র। আলমারি খুলে কাগজপত্র তছনছ করে দেওয়া হয়। মারধর করা হয় ব্লক নেতৃত্বদের। ঘটনায় গুরুতর আহত হন বিজেপি–র মণ্ডল সভাপতি হরেরাম সিংহ–সহ ৫ বিজেপি কর্মী। তঁাদের দ্বারিগেড়িয়া প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয় বিজেপি নেতা শুভঙ্কর সাঁই জানান, ‌গত বুধবারের ঘটনার পর এলাকাবাসীদের পক্ষ থেকে একটি গণঅভিযোগপত্র পুলিশ বিট হাউসে জমা দেওয়া হয়। এলাকাবাসীর অভিযোগ ওই বাড়িতে জুয়ার আড্ডা, মদ এবং মধুচক্রের আসর–সহ একাধিক বেআইনি কাজকর্ম চলে।’‌ শুভঙ্কর সাঁইয়ের অভিযোগ, ‌জেলা সহসভাপতি রাজীব কুণ্ডু তঁাকে এই ঘটনা চেপে যেতে বলেন। তিনি সেই কথা না মানায় তঁার বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ জমা দেওয়া হয় পুলিশ বিট হাউসে।   বিদ্যজনেদের একাংশের অভিমত , এরা বাংলায় আসবার আগেই যদি এরকম কুরুচিকর কাজ কর্ম করে তাহলে বাংলায় আসলে কি হবে ?

No comments:

Post a Comment

loading...