Monday, 5 August 2019

বাংলাকে নাগরিকপঞ্জী নিয়ে সতর্ক করলেন প্রাক্তন উপাচায তপোধীর ভট্টাচার্য্য

ওয়েব ডেস্ক ৫ই অগাস্ট  ২০১৯: নাগরিক পঞ্জী নিয়ে অসমের যে কি ভয়াবহ পরিস্তিতি চলছে তার বর্ণনা শোনা গেল অসম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য তথা অসম রাজ্য নাগরিক অধিকার সমন্বয় সমিতির সভাপতি তপোধীর ভট্টাচার্যর মুখে । সেখানকার আর্তনাদ এতদিন খবরের পাতায় ছিল , এবার খোদ চাক্ষুষ একজন শিক্ষিত লোকের মুখে শোনা গেল ।লোকসভা নির্বাচনকে প্রহসন বলে বর্ণনা করে তপোধীরবাবু এদিন প্রথম থেকে বিজেপি–‌র কড়া সমালোচনা করেন।
হিটলারকে নরেন্দ্র মোদি–‌অমিত শাহদের ‘আদি গুরু’ বলে বর্ণনা করে বিজেপি–‌র বিভেদের রাজনীতি সম্পর্কে বারবার সাবধান করার চেষ্টা করেন বাংলার মানুষকে। অসমের এনআরসি নিয়ে তাঁর সাফ কথা, ‘সংবিধান বিরোধী, গণতান্ত্রিক সংস্কৃতি বিরোধী, সভ্যতা বিরোধী ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্র অসমেই শুধু সীমাবদ্ধ থাকবে না।’ বাংলার মানুষকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, ‘বিভাজনের খেলা চলছে। শ্যামবাজারের সঙ্গে গড়িয়াকে লড়িয়ে দিতে চায় ওরা (বিজেপি)। বাঙালির মধ্যে বিভাজন চাইছে।’ ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান নিয়েও বিভাজন রাজনীতির কথা উল্লেখ করেন তিনি।
অসমের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে তপোধীরবাবু জানান, আত্মহত্যার সংখ্যা বাড়ছে। এনআরসি নিয়ে বাঙালিদের মধ্যে মনোরোগ বাড়ছে বলেও উল্লেখ করে তিনি জানান, হিন্দু বাঙালিরাও বিজেপি–‌র আমলে হিংসার শিকার। তবে একইসঙ্গে তিনি ফের বলেন, বাঙালি বাঙালিই। হিন্দু বা মুসলিম দিয়ে ভাগ করা যায় না। তাঁর সাফ কথা, ভারতে বাঙালির অস্তিত্বই প্রশ্নের মুখে। অসমের অভিজ্ঞতা থেকে এখনই সচেতন না হলে সর্বনাশ হয়ে যাবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। কেন্দ্রের বিজেপি সরকার মানুষের প্রতিবাদ করার অধিকারটুকুও কেড়ে নিতে চাইছে বলেও এদিন তিনি সবাইকে সতর্ক করে দেন। বাংলায় নাগরিক পঞ্জী করতে গেলে অসমের মতন অতটা সহজ যে হবেনা সেটা বিজেপির থেকে ভালো কেউ জানেনা ।

No comments:

Post a Comment

loading...