Monday, 30 September 2019

কাশ্মীরের অরাজগতার জন্য আপেল পচ্ছে গাছেই , উদাসীন মোদী সরকার

ওয়েব ডেস্ক ৩০শে  সেপ্টেম্বর ২০১৯:কাশ্মীরের রপ্তানি পণ্যের মধ্যে সবচেয়ে কদর আপেলের। সেই কদরের চিন্তা করেই অনেক আগ্রহ নিয়ে আপেল চাষ করেন সেখানের চাষিরা। কাশ্মীরের স্থানীয় অর্থনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেই আপেল এখন চাষিরা গাছে পচাচ্ছেন।

১ মাস ২৪ দিন ধরে কাশ্মীর অবরুদ্ধ। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করার পর থেকেই অস্থিতিশীলতার আশঙ্কায় সেখানে সেনা প্রহরা বাড়ানো হয়েছে। যোগাযোগব্যবস্থা অবরুদ্ধ করে দেওয়ায় কাশ্মীর কার্যত এখন বাইরের জগৎ থেকে বিচ্ছিন্ন। আর বিচ্ছিন্ন কাশ্মীরে এখন গাছেই পচে যাচ্ছে আপেল।এই পরিস্থিতিতে হয় রাগে না হয় সরকারবিরোধীদের সঙ্গে যোগ দিয়ে ইচ্ছে করেই আপেল পচাচ্ছেন চাষিরা।
প্রতিবছর কেন্দ্র সরকার  শত শত মিলিয়ন ডলার আয় করে  আপেল বিক্রি থেকে। কাশ্মীরের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে আপেল চাষে জড়িত।
কাশ্মীরের শোপিয়ান জেলার কেন্দ্রের একটি আপেলবাগানের মালিক গোলাম নবী এবং তাঁর ভাই প্রতিবছর সাত হাজার বাক্স আপেল বিক্রি করে ৭০ লাখ টাকা  মতো আয় করেন। তাঁর বাগানটি এখন অলস পড়ে রয়েছে। গাছ থেকে আপেল তোলা হচ্ছে না। পাকা আপেলের ভারে গাছের ডাল নুইয়ে পড়ছে।
মালিক বললেন, ‘ওগুলো গাছেই পচুক।’ তিনি বলেন, ফসল উৎপাদন হলে ভারতীয় সরকার বিশ্বকে বলতে পারবে কাশ্মীরে সবকিছু ঠিকঠাক চলছে। অথচ এই ‘সবকিছু ঠিকঠাক চলা’ থেকে অনেক দূরে রয়েছে।

কাশ্মীরে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ফলের বাগানের মালিকদের চাষ না করে ‘প্রতিরোধে’ যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রচারপত্র বিলি করেছে।



No comments:

Post a Comment

loading...