Wednesday, 4 September 2019

যত সমস্যা দেবশ্রীকে নিয়েই , শোভন-বৈশাখী যেমন মেনে নিতে চাইছেন না , দিলীপ বাবুরাও ছাড়তে চাইছেন না ।

ওয়েব ডেস্ক ৪ঠা  সেপ্টেম্বর ২০১৯: যত সময়  যাচ্ছে শোভন -বৈশাখী আর বিজেপির মধ্যে ফারাক তৈরী হচ্ছে । একে অপরের দিকে সরাসরি  আঙ্গুল না তুললেও দু পক্ষই এটা বোঝাতে ব্যস্ত, তারাই জিতেছে , আপস তারা কোনো কিছুর সাথেই করেনি । সূত্রের খবর অনুসারে শোভনদের সাথে বিজেপির দিলীপদের মধ্যে ফারাকটা এতটাই হয়েছে যে ব্যাপারটা ক্রমশ খারাপের দিকেই যাচ্ছে । তবে এটাও সত্যি- শোভন-বৈশাখী কিছুতেই দেবশ্রীকে বিজেপির অন্তর্গত হিসেবে মেনে নেবেনা । সঙ্গত, বিজেপিতেই থাকছেন, দল ছাড়ছেন না— দিল্লীতে মুকুল রায়ের সঙ্গে বৈঠকের পরে এমনটাই জানিয়েছিলেন সদ্য গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানো শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।
 কিন্তু কলকাতায় নেমেই ফের বিজেপিতে দেবশ্রী রায়ের যোগদান সংক্রান্ত প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় তাঁদের। আর তারপরই যা উত্তর আসে, তাতেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপের অবস্থান আর শোভন-বৈশাখীর অবস্থানের মধ্যে ফারাক আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গেল। উল্লেখ্য, দিল্লী থেকে শোভনরা কলকাতায় ফেরার আগেই তাঁদের বিষয়ে সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছিল দিলীপ ঘোষকে। তিনি প্রথমে বলেন, ‘প্রথম দিকে নতুন জায়গায় সবার সমস্যা হয়। নতুন বউ বাড়িতে এলে মানিয়ে নিতে সমস্যা হয়। পরে সবার মন জয় করে বউ থেকে বউমা হয়ে ওঠে।’কিন্তু দেবশ্রী রায়কে দলে নেওয়ার বিষয়ে শোভনদের আপত্তির প্রসঙ্গ উঠতেই দিলীপের মেজাজ বদলে যায়। তিনি বলেন, ‘আমি সকলের সামনে বলছি, কোনও শর্ত ছিল না। আমি কারও শর্ত মেনে চলিনি, মেনে চলবও না। ওই দিন দেবশ্রীর নামই আসেনি। আর কাকে নেব, কাকে নেব না, সেটা সভাপতি হিসেবে আমিই ঠিক করব। আমি শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কথা শুনি। আর কারও কথা শুনে আমি চলি না।’ দিলীপ ঘোষের শেষের উক্তিটাই প্রমান করে দূরত্ব যথেষ্টই বেড়েছে । এখন তো প্রশ্নই উঠেগেছে , কবে তাহলে বিজেপি ছাড়ছেন ।

No comments:

Post a Comment

loading...