Wednesday, 20 November 2019

"টাইফুনের" আশঙ্কা শীতকালীন অধিবেশনে । কিন্তু কেন ?

ওয়েব ডেস্ক ২০ শে নভেম্বর ২০১৯: সংসদে শীতকালীন অধিবেশনে সিটিজেনশিপ (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল উত্থাপনের যে সিদ্ধান্ত নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার, সেটির বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেমেছে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন। আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে কথিত ধর্মীয় নির্যাতনের কারণে দেশ ছেড়ে আসা ছয়টি অমুসলিম সম্প্রদায়ের লোকদেরকে নাগরিকত্ব দেয়ার বিধার রাখা হয়েছে এই আইনে। অল আসাম স্টুডেন্টস ইউনিয়নের (এএএসইউ) সদস্যরা গোয়াহাটির রাজ ভবনের কাছে একটি পয়েন্ট পর্যন্ত বিক্ষোভ করে এবং পরে একটি ছোট দল গভর্নর জগদিশ মুখীর কাছে স্মারকলিপি দেয়। ইউনিয়ন প্রস্তাবিত বিল প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বরাবর ওই স্মারকলিপি দেয়।
এএএসইউ উপদেষ্টা সমুজ্জ্বল ভট্টাচার্য বলেন, “এটা একটা সাম্প্রদায়িক বিল এবং এটা আসাম ও উত্তরপূর্বাঞ্চলের অন্যান্য জায়গার আদিবাসী মানুষের অস্তিত্ব হুমকির মুখে ফেলে দেবে”। কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতির নেতৃত্বে আরও কিছু সংগঠন বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিলের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাচ্ছে। অন্যদিকে, নয়টি রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে গঠিত লেফ্ট ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট বিলটি বাতিলের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছে। এএএসইউ নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশানের সাথে যুক্ত, যারা সোমবার এ অঞ্চলের আটটি রাজ্যেই বিক্ষোভ কর্মসূচির নেতৃত্ব দিয়েছে এবং বিভিন্ন রাজ্য সরকারের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে। ইমফালে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে সামান্য সংঘর্ষ হলেও অন্যান্য জায়গায় বিক্ষোভ ছিল মূলত শান্তিপূর্ণ। শিক্ষার্থীদের সংগঠন ছাড়াও মনিপুর পিপল এগেইন্সট সিটিজেনশিপ (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল ২০১৬ নামের একটি সংগঠন বিক্ষোভ করেছে এবং সোমবার থেকে মনিপুরে ১৮ ঘন্টার বন্ধের ডাক দিয়েছে। এসএএম। 

No comments:

Post a Comment

loading...