Monday, 4 November 2019

মহারাষ্ট্রে ,শিবসেনা -বিজেপির "নাটক" ভালোই জমেছে

ওয়েব ডেস্ক ৪রা নভেম্বর ২০১৯: যতই অতীতে শিবসেনা আর বিজেপি একসাথে মহারাষ্ট্র শাসন করুক না কেন, এবারকার মহারাষ্ট্র শাসনে দুজন কিছুতেই সমঝোতার পথে  আসতে চাইছে না । বিজেপি প্রদান করেছে উপ মুখ্যমন্ত্রীত্বের পদ সম্পূর্ণ ৫ বছরের জন্য আর এতেই বেজায় চটেছে শিবসেনা তাদের দাবি আড়াই বছর বিজেপি প্রার্থী মুখ্যমন্ত্রীত্বের পদে থাকুন আর আড়াই বছর তাদের ।গত শনিবার শিবসেনা আরও কঠোর অবস্থান নিয়ে বলেছে, কেবল মুখ্যমন্ত্রীর পদ নিয়েই আলোচনা হতে পারে। শিবসেনা এ কথাও বলে দিয়েছে, বিজেপিকে বাদ দিয়ে এখন সরকার গঠনের কথাও ভাবছে।গত ২১ অক্টোবরে অনুষ্ঠিত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি একক বৃহত্তম দল হিসেবে আবির্ভূত হয়। বিজেপি-শিবসেনা এক সঙ্গেই নির্বাচন করেছিল। ২৮৮ আসনের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ১০৫ আসন পায়। সরকার গঠনের জন্য তাদের আরও ৪০ আসন দরকার। নির্বাচনে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল শিবসেনার আছে ৫৬ আসন। আর শারদ পাওয়ারের দল দ্য ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) আছে ৫৪, কংগ্রেসের ৪৪।
গত ২১ অক্টোবরে অনুষ্ঠিত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি একক বৃহত্তম দল হিসেবে আবির্ভূত হয়। বিজেপি-শিবসেনা এক সঙ্গেই নির্বাচন করেছিল। ২৮৮ আসনের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ১০৫ আসন পায়। সরকার গঠনের জন্য তাদের আরও ৪০ আসন দরকার। নির্বাচনে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল শিবসেনার আছে ৫৬ আসন। আর শারদ পাওয়ারের দল দ্য ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) আছে ৫৪, কংগ্রেসের ৪৪।বিজেপিশাসিত এ রাজ্যে শিবসেনার সমর্থন ছিল। কিন্তু এবারের নির্বাচনের পর মুখ্যমন্ত্রীর পদ নিয়ে গোলযোগ শুরু হয়। শিবসেনা এবার মুখ্যমন্ত্রীর পদও চেয়ে বসে। তবে বিজেপি এ বিষয়ে কোনো ছাড় দিতে রাজি না। এক সাক্ষাৎকারে শিবসেনার জ্যেষ্ঠ নেতা সঞ্জয় রাউত বলেছেন, ‘বিজেপির সঙ্গে যদি আলোচনা হয়ই তবে তা হতে হবে মুখ্যমন্ত্রীর পদ নিয়ে।’
গত সপ্তাহে বিজেপির মন্ত্রী সুধীর মুঙ্গানতিওয়ার বলেছেন, ৭ নভেম্বরের মধ্যে যদি সরকার গঠন না করা যায়, তবে রাজ্যে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি হতে পারে।
বিজেপির মন্ত্রীর এ বক্তব্যের পর রাউত বলেছেন, মহারাষ্ট্রে যদি রাষ্ট্রপতির শাসন জারি হয় তবে তা বিজেপির আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত হবে।এদিকে শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’ পত্রিকায় আজ সম্পাদকীয়কে বলা হয়েছে, ‘বিজেপি যদি সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণে ব্যর্থ হয়, তবে শিবসেনা দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে সরকার গঠন করার দাবি করবে।’ রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের অভিমত, "নাটক জমেছে ।"

No comments:

Post a Comment

loading...