Saturday, 2 November 2019

বাঙালি শ্রমিকদের আর্জি শুনলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ওয়েব ডেস্ক ২রা   নভেম্বর  ২০১৯: যেভাবে বাঙালি শ্রমিকদের আতঙ্কবাদীরা কাশ্মীরে দাঁড় করিয়ে খুন করল , তার পর কাশ্মীর থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্তই পশ্চিমবঙ্গের শ্রমিকরা নিল। তাদের সিদ্ধান্তের কোনো ভুল দেখছেন ওয়াকিবহাল মহল । তারা নিজেরা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আর্জি জানিয়েছিল তাঁদের যেন কাশ্মীর থেকে ফিরিয়ে নেওয়া হয় বাংলায়।কাশ্মীরের বাঙালি শ্রমিকদের এ ডাকে সাড়া দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। তিনি বলেছেন, আর কাশ্মীরে রাখা হবে না এই রাজ্যের বাঙালি শ্রমিকদের।
কাশ্মীর থেকে বাঙালি শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গ সরকার প্রথম পর্যায়ে কাশ্মীর থেকে ১৩১ জন বাঙালি শ্রমিককে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছেন। ৯ জনকে ইতিমধ্যে কড়া নিরাপত্তায় বাসে করে নিয়ে আসা হয়েছে জম্মুতে। এখানে অন্যদের আনার পর একসঙ্গে একটি বিশেষ ট্রেনে করে আনা হবে বাংলায়।
নিহত পাঁচ শ্রমিকের দেহ তাঁদের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন মমতা। মৃতদেহ আনার জন্য কাশ্মীরে পাঠিয়েছিলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে।
বাঙালি শ্রমিকদের এই রাজ্যে ফিরিয়ে এনে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁদের ফিরিয়ে আনার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার রাজ্যের দুই শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তাকে কাশ্মীরে পাঠিয়েছেন। তাঁরা হলেন এডিজি (দক্ষিণবঙ্গ) সঞ্জয় সিং এবং সিআইডির এসএসবি অনুপ যশপাল। গতকাল শুক্রবার সকালেই তাঁরা ছুটে গেছেন কাশ্মীরে।
রাজ্য সরকার নিহত শ্রমিকদের পরিবারের সদস্যদের হাতে ৫ লাখ রুপি করে আর্থিক সাহায্যের চেকও পৌঁছে দিয়েছে। রাজ্য সরকার বলেছে, আহত শ্রমিকদের বিনা খরচে চিকিৎসা করাবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।মমতা বলেছেন, কাশ্মীরের এই শ্রমিক হত্যাকাণ্ড ছিল পূর্বপরিকল্পিত।এই বিষয়ে কারোর মনেই কোনো সন্দেহ নেই ।

No comments:

Post a Comment

loading...