Sunday, 1 December 2019

চিৎকার থামানোর জন্য হুইস্কি ঢেলে দেওয়াও হয় ধর্ষিত তরুণীর মুখে

ওয়েব ডেস্ক ১লা ডিসেম্বর ২০১৯:শ্বাসরোধে হত্যার পর শরীরে কম্বল জড়িয়ে পেট্রোল ও ডিজেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ার আগে চার ধর্ষক পালাক্রমে ধর্ষণ করে ২৬ বছর বয়সী নারী পশু চিকিৎসককে। শুধু তাই নয়, ধর্ষণের সময় ওই তরুণী যখন বাঁচার জন্য আর্তচিৎকার করেন, তখন ধর্ষকরা তার মুখে হুইস্কি ঢেলে দিয়ে চিৎকার থামানোর চেষ্টা করে।সন্দেহভাজন ধর্ষকদের গ্রেফতারের পর রিমান্ডে নিয়ে তাদের কাছে ওই তরুণীকে ধর্ষণ শেষে পুড়িয়ে হত্যার রোমহর্ষক বর্ণনা পেয়েছে ভারতের হায়দরাবাদ পুলিশ। এ ঘটনায় শনিবার সকালের দিকে দেশটিতে ব্যাপক্ষ বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ শুরু করেছেন হাজার মানুষ।
শনিবার সকালের দিকে তেলেঙ্গানা প্রদেশের রাজধানী হায়দরাবাদ থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরে শাদনগর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন তারা। এ সময় ওই ধর্ষকদের জনতার হাতে তুলে দেয়ার দাবি উঠে। বিক্ষোভ থেকে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষেও জড়িয়ে পড়েছেন তারা।
ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি ধর্ষকদের রিমান্ডে দেয়া জবানবন্দির একটি কপি হাতে পেয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বুধবার রাতে হায়দরাবাদের একটি টোল বুথের কাছে যে চিকিৎসক তরুণীকে ধর্ষণের পর আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে তার রোমহর্ষক বর্ণনা উঠে এসেছে ধর্ষকদের জবানবন্দিতে। অভিযুক্ত ধর্ষকদের প্রত্যেকের বয়স ২০ থেকে ২৬ এর মধ্যে। তাদের সবাইকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।
রিমান্ডে দেয়া চার ধর্ষকের জবানবন্দি অনুযায়ী, ওই টোল বুথের কাছে পৌঁছানোর পর এক চর্ম বিশেষজ্ঞের সঙ্গে দেখা করার জন্য সেখানে নিজের স্কুটারটি রেখে যান তিনি। বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নিজের স্কুটার রেখে ভাড়ায় চালিত ট্যাক্সি নিয়ে ওই চিকিৎসকের কাছে যান তিনি। সেখান থেকে রাত সোয়া ৯টার দিকে ফেরার পর দেখতে পান স্কুটারটির চাকা পাংচার।

No comments:

Post a Comment

loading...