Wednesday, 22 January 2020

কপিল সিব্বল চেষ্টা করেছিলেন প্রচুর , কিন্তু মানলনা সর্বোচ্চ আদালত

ওয়েব ডেস্ক ২২ শে  জানুয়ারী  ২০২০ :সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) উপর স্থগিতাদেশ জারি করলো না সর্বোচ্চ আদালত । ওই বিতর্কিত আইনের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতে জমা হওয়া ১৪০টিরও বেশি আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামলাটি ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চের কাছে পাঠানো হয়েছে।
এর আগে নাগরিকত্ব আইনের বিষয়ে স্থগিতাদেশ জারির আবেদন নিয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হন বেশ কয়েকজন। বুধবার সেসব আবেদনের শুনানি হয় ৩ বিচারপতির বেঞ্চে।প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বে গঠিত ওই বেঞ্চ জানিয়েছে, নাগরিকত্ব আইনে স্থগিতাদেশ জারি হবে কিনা সে বিষয়ে অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেবে ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ।
বুধবার সুপ্রিম কোর্টের ৩ বিচারপতির বেঞ্চ জানায়, কেন্দ্রীয় সরকারের এ বিষয়ে কী প্রতিক্রিয়া তা না জেনে কোনো স্থগিতাদেশ জারি করতে রাজি নন তারা। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ভারতজুড়ে বিক্ষোভের মধ্যেই এই আইনের বিরুদ্ধে স্থগিতাদেশ চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে ১৪৪টি আবেদন জমা পড়ে। কেন্দ্রের পক্ষে সওয়াল করতে উপস্থিত হয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে ভেনুগোপাল বেঞ্চকে বলেন, ১৪৪টি আবেদনের মধ্যে সরকারের কাছে মাত্র ৬০টি আবেদনের অনুলিপি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।তিনি বলেন, এই অনুলিপিগুলো না পৌঁছনোয় এখনই এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে কোনো মন্তব্য করা সম্ভব নয় কেন্দ্রের পক্ষে। এই সব আবেদনের জবাব দেওয়ার জন্য শীর্ষ আদালতের কাছে আরও কিছুদিন সময় চান তিনি। এরপর কেন্দ্রকে জবাব দেওয়ার জন্যে আরও ৪ সপ্তাহ সময় দেন সুপ্রিম কোর্ট।বুধবার প্রবীণ আইনজীবী কপিল সিব্বল বিরোধীদের হয়ে সওয়াল করতে উঠে আদালতের বেঞ্চকে সিএএ’র বিরুদ্ধে স্থগিতাদেশ জারি করার আবেদন করেন। পাশাপাশি যতদিন না পর্যন্ত এই মামলার কোনো সিদ্ধান্ত হয় ততদিন পর্যন্ত জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধীকরণের কাজ স্থগিত করারও আহ্বান জানান তিনি।

No comments:

Post a comment

loading...