Thursday, 6 February 2020

দিল্লি পুলিশ দাবি করছিলো আম আদমি পার্টির কর্মী বলে , হাটে হাড়ি ভাঙলেন অভিযুক্তের বাবা

ওয়েব ডেস্ক ৬ই ফেব্রুয়ারী   ২০২০ :গত ১ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) বিকালে শাহিনবাগের নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভে গুলি চালায় কপিল গুজ্জার নামের এক বন্দুকধারী। সে সময়ে প্রকাশিত ভিডিওতে তাকে বলতে শোনা যায়, ‘আমাদের দেশে কেবল হিন্দুরাই থাকবে।’ এবং ওই বন্দুকধারী ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানও দেয়। পরে পুলিশ তাকে আটক করে।

বুধবার কপিলের বাবা গাজে সিং এক বার্তা সংস্থাকে   বলেন, ‘আমার ছেলে মোদির সমর্থক ... ও মোদি এবং অমিত শাহের অনুসারী ছিল।’ তিনি আরও বলেন ‘আমার ছেলে বরাবরই ডানপন্থী, জাতীয়তাবাদী মনোভাবাপন্ন, সে সব সময়ই হিন্দুস্তান ও হিন্দুত্ববাদের কথা বলে।’
এর আগে মঙ্গলবার দিল্লি ক্রাইম ব্রাঞ্চের সিনিয়র অফিসার রাজেশ রাও শাহিনবাগে গুলি ছোঁড়া কপিল গুজ্জারকে আম আদমি পার্টির (এএপি) সদস্য বলে দাবি করে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে এক বছর আগে সে আর তার বাবা আম আদমি পার্টিতে (এএপি) যোগ দেয়। আমরা কপিলের ফোনে বেশ কিছু ছবি পেয়েছি যাতে আমাদের প্রকাশিত তথ্যই প্রমাণিত হয়’। এসব ছবিতে কপিলকে এএপি’র সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে দেখা গেছে। এরপর বুধবারই অভিযুক্তের বাবা গাজে সিং পুলিশের দাবি অস্বীকার করে জোর গলায় ঘোষণা দেন তার ছেলের সঙ্গে রাজনীতির জগতের কোনও যোগাযোগ নেই। সেই বিবৃতির পর কয়েক ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই এখন আবার পুরো উল্টো সুর শোনা গেল তার গলায়।

দিল্লি পুলিশের প্রকাশ্যে আনা একটি ছবিতে দেখা যায়, অভিযুক্ত যুবক ও তার বাবা আদমি পার্টির নেতা সঞ্জয় সিং এবং আতিশীর সঙ্গে একই মঞ্চে রয়েছেন। ওই ছবিতে শাহিনবাগ গুলি চালানোর ঘটনায় অভিযুক্ত যুবককে আপের দলীয় টুপি পরে থাকতেও দেখা যায়। এরপরেই ওই ছবি নিয়ে তোলপাড় হয় রাজধানী দিল্লির রাজনীতিতে। যদিও কপিল গুজ্জারের বাবা ও তার ভাই সাফ জানান যে তাদের সঙ্গে আম আদমি পার্টির কোনও যোগসূত্র নেই।

এর আগে দেখা যায় শাহিনবাগের অভিযুক্ত যুবককে নিয়ে তীব্র বাগযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে দিল্লিতে ক্ষমতাসীন আদমি ও বিজেপি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ইঙ্গিতেই কাজ করছে দিল্লি পুলিশ, এমনটাই অভিযোগ আম-আদমির।

No comments:

Post a comment

loading...