Monday, 2 March 2020

অমিত শাহ আত্মবিশ্বাসী , মমতাও কি ছেড়ে দেওয়ার পাত্রী ? পড়ুন

ওয়েব ডেস্ক ২রা মার্চ ২০২০ : কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রোববার কলকাতার শহিদ মিনারের সভা থেকে সোনার বাংলা গড়ার ডাক দেন। মাত্র পাঁচ বছর সময় পেলেই সোনার বাংলা গড়ে দেবেন তিনি বলে জানালেন। এদিন বাংলার মাটিতে দাঁড়িয়ে বিজেপির এই নেতা পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী ও তৃনমূল দলের প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, ‘মমতাদিদি, বাংলাকে মোদির হাতে তুলে দিন।তিনি দাবি করেন, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় আসলেই আগামী পাঁচ বছরে সোনার বাংলা গড়ে উঠবে। বিজেপির হাতে পড়েলেই এই বাংলা একদিন সোনার বাংলা হয়ে উঠবে। বাংলায় বিজেপির শাসন এবার অবশ্যম্ভাবী।
অমিত শাহ দাবি করেন, রাজ্যের বিধানসভা ভোটে এবার সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে বিজেপি। লোকসভা ভোটেই সেই আভাস মিলেছে। বাংলা থেকে ৪২ জনের মধ্যে ১৮ জন বিজেপি সাংসদ দিল্লি গিয়েছেন। এবার বিধানসভা ভোটে ২৯৪ আসনের লড়াইয়ে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবেই। আর তা হলেই পশ্চিমবঙ্গকে সোনার বাংলা গড়ব আমরা।অমিত শাহ এদিন অভিযোগ করে বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গকে শেষ করে দিয়েছেন। এই বাংলায় এখন কিছু নেই। রামকৃষ্ণ ও বিবেকানন্দের সোনার বাংলাকে আবার ফিরিয়ে আনতে পারেন একমাত্র নরেন্দ্র মোদিই।

অমিত শাহ চ্যালেঞ্জ ছুড়ে জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিছু করেই বিজেপিকে বাংলায় আর আটকাতে পারবেন না। এর আগে অনেক চেষ্টা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপিকে আটকাতে পারেননি। বিজেপি নেতাকর্মীদের হেলিকপ্টার নামতে দেওয়া হয়নি, সভার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবু বিজেপি লোকসভায় ২ থেকে বেড়ে ১৮ হয়েছে।

অমিত শাহ বলেন, মমতা দিদি বাংলার মানুষ আপনাকে চিনে নিয়েছে। বাংলায় স্বৈরাচারী শাসনের অবসানের জন্য লড়াই চলছে। বাংলা আর অন্যায় সহ্য করবে না। শ্রীরামচন্দ্র, রামকৃষ্ণ, সুভাষচন্দ্রের মাটিকে প্রণাম। কোনও শাহজাদা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হবেন না।

তিনি এদিন কলকাতায় দাঁড়িয়ে দাবি করেন, সিএএ নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন। নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার নয়। বাংলার মাটিতে শরণার্থীদের আজ ভয় দেখানো হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় যেতে বলা হচ্ছে। আমি বলছি, কোথাও যেতে হবে না। যারা উদ্বাস্তু তাদের নাগরিকত্ব দেবে বিজেপি।

তবে এদিন অমিত শাহ কলকাতায় পা রাখতেই গো ব্যাক স্লোগান, কালো পতাকা বেলুন নিয়ে কলকাতা বিমানবন্দর, ধর্মতলাসহ বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভে দেখায় বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস।

No comments:

Post a comment

loading...