Tuesday, 31 March 2020

মমতা যেভাবে করোনা নিয়ে যুদ্ধ কালীন তৎপরতা দেখিয়েছেন ,আলিমুদ্দিনের কাছে সেটাই হত স্বপ্ন

ওয়েব ডেস্ক ৩১ শে  মার্চ ২০২০ : পশ্চিমবঙ্গ সরকার রাজ্যের ২২ জেলায় ২২টি হাসপাতালকে করোনা হাসপাতালে রূপ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
গতকাল সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও অন্য কর্মকর্তাদের এক ভিডিও কনফারেন্সে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান। ভিডিও কনফারেন্সে রাজ্যের মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, রাজ্য পুলিশের ডিজিসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছিলেন।
পশ্চিমবঙ্গে আরও একজন করোনা রোগী গতকাল সোমবার রাতে মারা গেছেন। তিনি হাওড়ার জেলা হাসপাতালে মারা যান। মৃত্যুর আগে ওই রোগীর নমুনা পরীক্ষার জন্য কলকাতার পিজি হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেই রিপোর্ট আসে তাঁর মৃত্যুর পর। এই নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে করোনায় মারা গেলেন তিনজন। আর আক্রান্ত ২৫ জন।করোনায় আক্রান্ত প্রথম যে তিনজন রোগী কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল, তাঁরা সুস্থ হয়েছেন। আজই তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। হাসপাতাল ছাড়ার পর তাঁদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।
গতকালই রাজ্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে জেলা প্রশাসকদের চিঠি দেওয়া হয়। চিঠিতে জেলার কোন হাসপাতালকে করোনা হাসপাতালে রূপ দেওয়া যায়, তা সবিস্তারে রাজ্য সরকারকে জানাতে বলা হয়।

ইতিমধ্যে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে তিন হাজার বেডের করোনা হাসপাতাল হিসেবে গড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। এ ছাড়া কলকাতার উপশহর রাজারহাটের চিত্তরঞ্জন ক্যানসার ইনস্টিটিউটকে দ্বিতীয় করোনা হাসপাতাল হিসেবে গড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখন এই ইনস্টিটিউট করোনায় আক্রান্ত রোগীদের কোয়ারেন্টিন হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। এখানে ৩০০ বেডের কোয়ারেন্টিন রয়েছে। এটিকে করোনা হাসপাতালে রূপ দেওয়া হলে বেডের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ৫০০।

No comments:

Post a comment

loading...