Sunday, 8 March 2020

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের আমলে নারী জাতির যে অভাবনীয় সাফল্য হয়েছে তার সিলমোহর দিল রাষ্ট্রীয় সংঘ

ওয়েব ডেস্ক ৮ই  মার্চ ২০২০ :এ বছর আন্তর্জাতিক নারী দিবসে এই বার্তাই দিয়েছেন রাষ্ট্র সংঘের সেক্রেটারি জেনারেল। আর এই বার্তা, অর্থাৎ মেয়েদের স্কুলে যাওয়া, মেয়েদের ড্রপ আউট কমানো যে নারী-পুরুষের ব্যবধান কমানোর অন্যতম হাতিয়ার তা মেনে নিচ্ছেন দুনিয়ার সমস্ত সমাজ বিজ্ঞানী। এই জায়গায় দাঁড়িয়েই গত কয়েক বছরে দৃষ্টান্তমূলক বদল ঘটে গিয়েছে এ রাজ্যে। সৌজন্যে কন্যাশ্রী। নজিরবিহীনভাবে রাজ্যে বেড়েছে মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার হার। কমেছে মেয়েদের ড্রপ আউট। ইদানীং যা প্রতিফলিত হচ্ছে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিকে মেয়েদের অংশগ্রহণে। রাজ্যে দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে ছাত্রীদের সংখ্যা। শুধু তাই নয়, রাজ্যে কমেছে কম বয়সী মেয়েদের বিয়ে। কমেছে নারী পাচারও।

২০১৩ সালের নারী দিবসের দিন কন্যাশ্রী প্রকল্প চালু করেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। প্রত্যেক বছর ১৪ অগাস্ট রাজ্য সরকার কন্যাশ্রী দিবস পালন করে। এই মুহূর্তে রাজ্যে কন্যাশ্রী প্রকল্পে নথিভূক্ত মেয়ের সংখ্যা ১ কোটি ৮৫ লক্ষেরও বেশি। কন্যাশ্রী প্রকল্পে রাজ্যে ইতিমধ্যেই উপকৃত ৬৪ লক্ষের বেশি মেয়ে। সমাজ বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, রাজ্যে কন্যাশ্রী প্রকল্পের প্রভাব ব্যাপকভাবে পড়তে শুরু করেছে শিক্ষা ব্যবস্থার ওপর। মেয়েদের স্কুল ড্রপ আউট কমেছে কয়েক শতাংশ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বারবার জানিয়েছেন, মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার হার বৃদ্ধি ও ড্রপ আউট কমায় কমে গিয়েছে নাবালিকা বিয়ে। যার প্রভাবে কমেছে নারী পাচারের সংখ্যা, যা ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর রিপোর্টেও পরিষ্কার। নদিয়া জেলায় কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয়ও গড়ছে রাজ্য।

No comments:

Post a comment

loading...