Monday, 30 March 2020

ভবিষ্যতের কথা ভেবেই ট্রেনের কামরা গুলোকে 'আইসোলেশন ওয়ার্ডে " পরিণত করা হচ্ছে

ওয়েব ডেস্ক ৩০ শে  মার্চ ২০২০ : করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় দেশ জুড়ে টানা ২১ দিনের লকডাউন চলছে। এটি কার্যকর থাকবে আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। এ সময়ে দেশটিতে সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে তাই বলে বসে নেই ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ। এই অবসরে করোনা মোকাবিলার প্রস্তুতি নিচ্ছে তারা। ট্রেনের কোচকেই পরিণত করা হচ্ছে আইসোলেশন ওয়ার্ডে।রেল সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, আপাতত ৩০টি ট্রেনে এ ধরনের আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে এই বিশেষ বগিগুলোর মাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের প্রয়োজনে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে নেওয়া যাবে। বিশেষ এই বগিগুলোকে আইসোলেশন কোচ-ও বলা হচ্ছে।
রেলযাত্রী কোনও ব্যক্তির দেহে করোনা সংক্রমণের লক্ষণ দেখা দিলে তাকেও তাৎক্ষণিক ওই আইসোলেশন কোচে স্থানান্তরিত করা যেতে পারে। এর ফলে অন্য যাত্রীদের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেকটাই কমবে।সূত্রের খবর অনুযায়ী , এই নন এসি ট্রেনগুলোতে রয়েছে ১০টি করে কেবিন। প্রতিটি কেবিনে একটি করে বাথ। প্রতি বগিতে একাধিক শৌচাগারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। চারটি শৌচাগারের মধ্যে তিনটি সাধারণ শৌচাগার এবং একটি ওয়েস্টার্ন টয়লেট।
প্রতি কেবিনে একজন করে করোনা আক্রান্ত থাকতে পারবেন। দুইটি টয়লেটকে গোসলখানার মতো করে তৈরি করা হয়েছে। বাথগুলো ঢেকে দেওয়া হয়েছে ভারী পর্দা দিয়ে।

এদিকে লকডাউনের মধ্যেই দেশে  লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৩৩। এর মধ্যে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, ভারতে আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা আরও অনেক বেশি। কিন্তু ব্যাপকভিত্তিক পরীক্ষার সুযোগ না থাকায় আক্রান্তদের অনেকেই সরকারি হিসাবের মধ্যে আসছে না।

No comments:

Post a comment

loading...