Thursday, 30 April 2020

"ও মেরি চাঁদনী" বলে আর কেউ ডাকবে না চলে গেলেন ঋষি

ওয়েব ডেস্ক ৩০শে এপ্রিল ২০২০: বলিউডের আকাশে এখন কাল মেঘ ঘনিয়েছে। ফের এক মহাতারকাকে হারাল ভারতীয় চলচ্চিত্র জগৎ। বুধবার ইরফান খানের পর বৃহস্পতিবারই চিরনিদ্রায় গেলেন ঋষি কাপুর।অত্যন্ত সংকটজনক অবস্থায় বুধবারই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। মারণ ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করছিলেন ঠিকই, কিন্তু এত আকস্মিকভাবে চলে যাবেন ভাবতে পারেননি কেউই! জানাতে গিয়ে কণ্ঠস্বর রোধ হয়ে আসছিল অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরের। অমিতাভ বচ্চন বললেন, ‘আমি শেষ হয়ে গেলাম!’
“ও চলে গেল। ঋষি চলে গেল এভাবে ছেড়ে। আমি পুরোপুরি ভেঙে পড়েছি”, বৃহস্পতিবার সকালে টুইট করে ঋষি কাপুরের মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আনেন অমিতাভ বচ্চন।

কথা বলতে গিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন শর্মিলা ঠাকুর। “আমি শোকাহত, মর্মাহত! বিশ্বাস করতে পারছি না। কী ভাল অভিনেতা। ওঁর শূন্যস্থান কোনও দিন পূরণ হবে না। ‘মুলক’, ‘কাপুর অ্যান্ড সনস’ কত ছবির নাম বলব! কী করে হল? কেন হল? বুঝতে পারছি না।

কাল ইরফান খান, আজ ঋষি (কাপুর)! আমরা তো এখন একটা পরিবার। কারিনার আঙ্কেল। আমি কথা বলতে পারছি না। গলা পাকিয়ে আসছে। ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছিল তো ও। মনে আছে, নিউইয়র্ক থেকে ফেরার পর পৃথ্বী থিয়েটারে একটা গিয়েছিলাম একদিন। অনেকে ছিল তাই কথা হয়নি ওঁর সঙ্গে। হাসিঠাট্টা করছিল, দেখে মনে হচ্ছিল সব ঠিকই তো চলছিল। এই তো দিন কয়েক আগেই, লকডাউনে মদের দোকান খোলা নিয়ে কথা বলল। আর কারও ক্ষমতা হত না এটা বলার আমি নিশ্চিত। আমি তো এখন দিল্লিতে থাকি, মুম্বাইতে যেতেও পারব না। ওঁর সঙ্গে কোনও ছবি করিনি। কিন্তু ঋষি খুব ভাল বন্ধু ছিল আমার। আমার দুই ছেলে-মেয়েই সাইফ আর সোহা দু’জনেই ওঁর সঙ্গে স্ক্রিন স্পেস শেয়ার করেছে। এখন তো পারিবারিকভাবেও জড়িত আমরা। বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে। কারিনাকে (কাপুর) ফোনে ধরব”, মন্তব্য তাঁর

“ওঁর মতো অভিনেতা হয় না। বহু বছর থেকেই নীতু আর ওঁকে বহু বছর ধরে চিনি। এই সময়ে কথা বলতে পারছি না”, বললেন ঋষি কাপুরের বহু সিনেমার নায়িকা হেমা মালিনি।

আবেগপ্রবণ ধর্মেন্দ্র বললেন, “আমি ভেবেছিলাম ও লড়ে, জিতে ফিরেছে! ঋষি অনেক কিছু শিখিয়ে গিয়েছে আমাদের।”

“সবসময়ে হাসিখুশি থাকত। পজিটিভ চিন্তাভাবনা করত। মাস খানেক আগেই ঋষির সঙ্গে শুটিং করছিলাম। কিন্তু ওঁর শরীর খারাপের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছিল। সেটা আর হল না! ওঁর মতো এত পরিচালক, প্রযোজক কিংবা নায়িকার সঙ্গে খুব কম লোকই কাজ করেছেন। এককথায় বলব ‘রাজা’ ছিল ও”, মন্তব্য পারিবারিক বন্ধু তথা অভিনেতা সতীশ কৌশিকের।

ঋষির প্রযোজক বন্ধু মুকেশ ভাটের মন্তব্য, “৪০ বছরের সম্পর্ক আমাদের। খোলামেলা কথা বলত। আমার কাছে এখন কোনও শব্দ নেই। ইরফানের পরই ঋষি! কেন? এত খারাপ সময় বলিউড দেখেনি। আমি চাইলেও এখন আমার বন্ধুর শেষষাত্রায় শামিল থাকতে পারব না! আমার দুর্ভাগ্য এটা। যতদিন আমি বেঁচে থাকব চিন্টু আমার হৃদয়ে থাকবে। ওঁর মতো মানুষ হয় না।”

টুইটারে শোকবার্তা জানালেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, অক্ষয় কুমার, জুহি চাওলা-সহ আরও অনেকেই। শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছেন বীরেন্দ্র শেহবাগও।

No comments:

Post a comment

loading...