Saturday, 4 April 2020

লকডাউন নিয়ে একটু ঢিলেমি দিলেই পরিস্থিতি আয়ত্তের বাইরে চলে যেতে পারে

ওয়েব ডেস্ক ৪ঠা  এপ্রিল ২০২০ :বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের প্রকোপে ভারতে ভয়াবহ অবস্থা সৃষ্টি হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে একটি মার্কিন সংস্থা। তাদের বক্তব্য, ভারতের জনসংখ্যা এবং অনুন্নত স্বাস্থ্য ব্যবস্থার জন্যই তাড়াতাড়ি লকডাউন তুলে নেয়া সম্ভব হবে না। তা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গড়াতে পারে। মার্কিন সংস্থা বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপ এ দাবি করেছে।
ওই সংস্থার সমীক্ষায় উল্লেখ করা হয়, জুনের তৃতীয় সপ্তাহে ভারতে করোনার আক্রান্তের সংখ্যা ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। লকডাউনে চীনের পরিস্থিতি এবং ভারতের স্বাস্থ্যের পরিকাঠামোর ওপর ভিত্তি করে প্রতিবেদনটিতে এসব কথা বলা হয়েছে।
মার্কিন সমীক্ষা প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, জুন-জুলাই পর্যন্ত কলম্বিয়া, পোল্যান্ড এবং ব্রিটেনেও লকডাউন চলতে পারে। তবে ভারতের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে আরও সময় লাগবে।

মুম্বাইয়ের ব্রিহানমুম্বাই পৌর কর্পোরেশনের (বিএমসি) এক কর্মকর্তা জানান, মৃত ব্যক্তির বিদেশ ভ্রমণের কোনো ইতিহাস ছিল না। স্থানীয় কিরণ দিগাভকর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল তাকে। সেখানে করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ ফল আসার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তিনি মারা যান। পরে ওই ব্যক্তির পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্যের করোনা পরীক্ষা করা হয় এবং তাদের সবাইকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ ব্যক্তি বস্তির যে ব্লকে থাকতেন সেখানে ৩০০ ঘর ও ৯০টি দোকান রয়েছে।

করোনার বিস্তার ঠেকাতে ব্যাপক ঘনবসতিপূর্ণ সেই ব্লক বর্তমানে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এশিয়ার বৃহত্তম মুম্বাইয়ের ধারাবি বস্তিতে ১০ লাখের বেশি মানুষের বসবাস। এ বস্তির প্রতি বর্গকিলোমিটারে মানুষের ঘনত্ব ২ লাখ ৮০ হাজার; যা যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের চেয়ে তিনগুণ বেশি।
 চিকিৎসকরা সতর্ক করে বলেছেন, ভারতের অসংখ্য বস্তির একটিতেও যদি করোনার স্থায়ী প্রাদুর্ভাব শুরু হয়; তাহলে পরিস্থিতি একেবারে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে। কারণ ভারতের অধিকাংশ বস্তিতে স্যানিটেশন এবং বিশুদ্ধ পানির সুব্যবস্থা নেই। এছাড়া হাজার হাজার মানুষ গাদাগাদি করে সেখানে জীবন-যাপন করেন। এসব বস্তিতে সামাজিক দূরত্ব শারীরিক কিংবা অর্থনৈতিকভাবে বজায় রাখা প্রায় অসম্ভব।

ভারতে লকডাউন না মানলে কঠোর শাস্তি : করোনা প্রতিরোধে ২৪ মার্চ থেকে ভারতজুড়ে চলছে তিন সপ্তাহের লকডাউন। ভারতের ২৮টি রাজ্য এবং ৯টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে। তবে কিছু কিছু রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় কিছু মানুষ জেনেশুনেও লকডাউন অমান্য করে চলেছে।

করোনার কারণে ভারতজুড়ে ২১ দিনের (১৪ এপ্রিল পর্যন্ত) লকডাউন চলছে। তবে ভারতের কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে, লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর কোনো পরিকল্পনা নেই।

No comments:

Post a comment

loading...