Thursday, 28 May 2020

ক্ষুদার জ্বালায় মৃত্যু হল মায়ের, কোলের সন্তান বুঝতেও পারল না সে কি হারিয়েছে

ওয়েব ডেস্ক ২৮শে মে ২০২০: করোনা পরিস্থিতিতে যত দিন এগোচ্ছে ততই যেন এক একটি মর্মান্তিক দৃশ্য ভেসে উঠছে চোখের সামনে। লকডাউনের ফলে অভিবাসী শ্রমিকদের দুর্দশার বিভিন্ন চিত্রের মধ্যেই যে ভিডিওটি ভাইরাল হলো সোশ্যাল দুনিয়ায় তা দেখে অতি কঠিন হৃদয়ের মানুষেরও চোখে জল  আসতে বাধ্য। স্টেশনে নিঃসাড় হয়ে পড়ে আছে মৃত মা, আর অবুঝ শিশুটি মায়ের গায়ের উপর দেওয়া কাপড়টি একবার করে তুলে মাকে জাগাবার চেষ্টা করছে, আর পরক্ষণেই মাকে আবার সেই কাপড় দিয়ে ঢেকে দিচ্ছে। বছর দেড়েকের শিশুটি বুঝতেও পারছে না কী হারালো সে! এমনিতেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে লকডাউন জারি হওয়ার পর থেকেই চরম খারাপ অবস্থায় কাটাচ্ছেন দেশের  বিভিন্ন রাজ্যের আটকে পড়া অভিবাসী শ্রমিকরা।
তাঁদের বাড়ি ফেরাতে ভারতীয় রেলের তরফ থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানো হলেও তাতে চরম অব্যবস্থার খবর প্রায় প্রতিদিনের রিপোর্টে উঠে আসছে। আর তেমনই এক পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন এক অভিবাসী শ্রমিক পরিবারের মহিলা সদস্য। বাড়ি ফেরার জন্যে গুজরাট থেকে ট্রেনে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু ট্রেনের মধ্যেই গরম এবং খুধা-তৃষ্ঞায় অসুস্থ হয়ে পড়েন মহিলা। বিহারের মুজফফরপুরের একটি স্টেশনে ট্রেনটি ঢোকার আগেই মারা যান তিনি।

ভিডিও ক্লিপটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। বিহারের মুজাফফরপুরের ওই স্টেশনেই পড়ে আছে মৃতার দেহ। পাশেই ঘোরাফেরা করছে তাঁর অবুঝ সন্তানটি। মা নেই, বোঝার মতো বয়সও হয়নি তাঁর। সে ভাবছে, মা বুঝি ঘুমোচ্ছে, এই আর একটু পরেই হয়তো মা উঠে কোলে তুলে নেবে তাকে। গত সোমবার পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে একটি বিশেষ ট্রেন ওই স্টেশনে পৌঁছলে, সেখানেই নামানো হয় মহিলার দেহ।

এখানেই শেষ নয়, জানা গেছে ওই একই স্টেশনে দু'বছরের একটি শিশুও মারা গেছে। শিশুটির পরিবার রবিবার দিল্লি থেকে বিশেষ ট্রেনে বাড়ি ফেরার জন্যে ওঠে, কিন্তু খাবারের অভাবে ও অসহ্য গরমে মারা যায় শিশুটি।

No comments:

Post a comment

loading...