Thursday, 11 June 2020

যেখানে গরু মারলে দশ বছর জেল,সেই দেশেই অনাহারে ৮০ গরু মারা গেল

ওয়েব ডেস্ক ১১ ই   জুন  ২০২০:প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারী ঠেকাতে দেশেজুড়ে লকডাউন জারি করেছে ভারত  সরকার। এতে করে বিপাকে পড়েছেন সুস্থ ও শ্রমজীবী মানুষ। এবার সেই নামের সঙ্গে যুক্ত হলো গৃহপালিত প্রাণী গরু। লকডাউনে খাদ্যের অভাবে ৮০টি গরু মারা গেছে। আর সেই গরুগুলোর মৃতদেহ ছিঁড়ে খাচ্ছে কুকুর।
হরিয়ানায় এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে। যেখানে আইন করে গো রক্ষার কথা ঘোষণা করেছিল নরেদ্র মোদির সরকার। সেখানে ক্ষুধার জ্বালায় গবাদি পশুগুলোর মৃত্যুতে তৈরি হয়েছে সমালোচনা।
 লকডাউনের মধ্যে হরিয়ানার সামালখা চুলাকানা অঞ্চলের শ্রী কৃষ্ণ গোশালায় এই ঘটনা ঘটে। গোশালায় খাবার জোগানের ঘাটতি হওয়ায়, ক্ষুধায় মারা গিয়েছে ৮০ টি গরু।

এ বিষয়ে গোশালার মালিক জানান, তাদের অনেক গরু রয়েছে। লকডাউনের মধ্যে সব গরুর যত্ন নিতে পারেননি তারা। এই অবস্থায় সরকারের সাহায্য চেয়েছিলেন তারা। কিন্তু কোনো সাড়া মেলেনি।

এদিকে কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, মৃতগরুগুলোর সৎকারের জন্যও কোনো জায়গা পাচ্ছেন না তারা। গোশালার ভিতরেই পচছে গরুগুলোর মৃতদেহ।

শ্রীকৃষ্ণ গোশালা প্রায় সাড়ে তিন একর জমির ওপর তৈরি। সেখানে ১ হাজার ১০০ গরু থাকতে পারে। কিন্তু রয়েছে ১ হাজার ৮৫০টি গরু। সংস্থার পক্ষে মনজের কুলদীপ জানান, খিদের জ্বালায় গরুগুলো মারা গেছে। আরো বহু গরু মরণাপন্ন অবস্থায় রয়েছে। শরীর এত দুর্বল যে খাবার দিলেও খেতে চাইছে না।

প্রসঙ্গত,  নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপির শাসনকালে গো রক্ষা বড় ইস্যু হিসেবে কাজ করেছে। বিশেষ করে গত কয়েক বছরে ভোটের রাজনীতিতে। কিন্তু লকডাউনে সেই গরুর মৃত্যুতে প্রশাসন থেকে পশুপ্রেমী সকলেই মুখে কুলুপ এটে আছেন।

No comments:

Post a comment

loading...