Wednesday, 3 June 2020

মমতার সওয়াল, শুনবে কি কেন্দ্র ?

ওয়েব ডেস্ক ৩রা  জুন  ২০২০:লকডাউনের জেরে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন পরীযায়ী শ্রমিকেরা। একদিকে তো তাঁরা কাজ হারিয়েছেন অন্যদিকে নিজেদের রাজ্য ফিরতেও পড়তে হচ্ছে নানান সমস্যায়। ইতিমধ্য়েই পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছে বহু পরিযায়ীর। এবার তাঁদের জন্যই সরকারের কাছি বিশেষ অনুরোধ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। কেন্দ্রের কাছে পরিযায়ী শ্রমিক পিছু ১০,০০০ টাকা করে এককালীন আর্থিক সাহায্য প্রদানের জন্য আর্জি জানান মুখ্যমন্ত্রী।
বুধবার সকালে এবিষয়ে একটি ট্যুইট করেন মমতা। সেখানে তিনি লেখেন, ‘চলতি মহামারীর কারণে মানুষ আশাতীত অর্থকষ্টের মধ্যে রয়েছেন। কেন্দ্রের কাছে আর্জি জানাচ্ছি, তারা যেন পরিযায়ী শ্রমিক ও অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকপিছু এককালীন ১০,০০০ টাকা করে সাহায্য দেয়। PM-CARES-এর একটা অংশ এই খাতে খরচ করা উচিত।’
তবে শুধুমাত্র বাংলার মুখ্যমন্ত্রী নন, এর কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কেন্দ্রের কাছে অর্থ সাহায্য চেয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, এই সংকটের মুহূর্তে আগামী ৬ মাস প্রতিটি গরিব পরিবার পিছু ৭,৫০০ টাকা করে দিক কেন্দ্র। এমনকি খুব শীঘ্রই আর্থিক সংকট কাটিয়ে ওঠার জন্য তাঁদের ১০,০০০ টাকা করে দেওয়া উচিত বলেও তিনি মত প্রকাশ করেন। পরিযায়ী শ্রমিকদের নিরাপদে পাড়ি ফেরানোর পক্ষেও সওয়াল করেন সনিয়া। এমনকি বিরোধী দলগুলির সাথে বৈঠকে এবিষয়ে আলোচনাও করেন কংগ্রেস সাপতি।
রাজ্য সরকার সুত্রের খবর, আমফানের জেরে যাঁরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন তাঁদের মধ্য়ে থেকে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩০ লক্ষ অ্যাকাউন্টে সরকারি তরফে আর্থিক অনুদান পৌঁছে গিয়েছে। আমফানের জেরে যাঁরা গৃহহীন হয়েছেন সেইরকম প্রায় ৫ লক্ষ মানুষ, আছাড়াও ২৫ লক্ষ ৩০ হাজার কৃষকও এই আর্থিক সাহায্য পেয়েছেন। এই কৃষকদের মধ্যে ২ লক্ষ পানচাষিও রয়েছেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এবিষয়ে একটি টুইট করেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। প্রাথমিক ভাবে ১৩৫০ কোটি টাকার বাজেট থাকলেও আপাতত আমফান পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই ১৪৪৪ কোটি টাকা খরচ হয়ে গিয়েছে।

No comments:

Post a comment

loading...