Thursday, 25 June 2020

এদের দেশ প্রেম দেখে সারা দেশ তাদের কুর্নিশ জানাচ্ছে, আলিমুদ্দিন দেখছে তো ?

ওয়েব ডেস্ক ২৫শে  জুন  ২০২০: তাদের কারও বয়স ৭, কারও বয়স ১০ বা ১১। বাড়ি উত্তরপ্রদেশের আলিগড় জেলার গাবহানা পুলিশ থানার অধীন আমরাদপুর গ্রামে। 
গত সপ্তাহে গালওয়ান উপতক্যায় ভারত-চীন সংঘর্ষে নিহত এক কর্নেলসহ ২০ জন ভারতীয় সেনার বদলা নিতে লাদাখের উদ্দেশে রওনা দিল আলিগড়ের ১০ কিশোর। যদিও ভারত-চীন সীমান্তের কাছে পৌঁছানোর আগেই তাদের বুঝিয়ে বাড়ি ফেরায় পুলিশ। 
আলিগড়ের বাসিন্দা ওই ১০ কিশোর নিজেরাই ঠিক করে যে চীনা সেনাবাহিনীর হাতে নিজেদের দেশের সেনাবাহিনীর মৃত্যুর প্রতিশোধ নেবে। এরপরই প্রত্যেকেই ঘর ছেড়ে বেরিয়ে পড়ে তারা। প্রথমে এক জায়গায় তারা জড়ো হয়ে, সেখান থেকে মার্চ-পাস্ট করে লাদাখের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে। কিন্তু বেশ কিছুটা পথ পাড়ি দেওয়ার পরই রাস্তা দিয়ে দৌড়াতে দেখে গাবহানা থানার পুলিশের সন্দেহ হয় এবং তাদের পথ আটকায়। শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ। তখনই তারা প্রত্যেকেই পুলিশকে জানায় চীনকে উচিত শিক্ষা দিতেই তারা গালওয়ান উপত্যকার দিকে যাচ্ছে। গোটা ঘটনা শুনে তাজ্জব হয়ে যায় পুলিশ। তাদের এই দেশপ্রেমকে পুলিশের কর্মকর্তারা স্তম্ভিত হলেও পরে ওই কিশোরদের বুঝিয়ে বাড়ি ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করেন এবং পড়াশোনায় মনোযোগ দেয়ার করার কথা বলেন। 
ইতোমধ্যেই ওই কিশোরদের ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। একদল কিশোরের এই দেশ প্রেম দেখে কুর্ণিশ জানিয়েছে গোটা দেশ।

করণ নামে এক কিশোর গণমাধ্যমকে জানায় ‘আমরা চীন সীমান্তের দিকে যাচ্ছি। কারণ ওরা (চীন) আমাদের সেনাদের মেরেছে।’ চীনের সাথে লড়াই করতে পারবে কি না এই প্রশ্নের উত্তরে করণের সাথেই অন্য কিশোরাও দৃঢ়তার সাথে জানায় ‘আমরা লড়াই করতে চাই।’

No comments:

Post a comment

loading...