Wednesday, 1 July 2020

প্রত্যাশা মতোই পাকিস্তান তাদের বিমান ঘাঁটি চীনকে ব্যবহার করতে দিল

ওয়েব ডেস্ক ১লা জুলাই   ২০২০:ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বিবাদের মধ্যে পাকিস্তানের বিমানঘাঁটি ব্যবহার করছে চীন। পাকিস্তানের অধীনে থাকা কাশ্মীরে স্কার্দু বিমানঘাঁটিতে চীনের বিমান বাহিনীর মুভমেন্ট দেখতে পেয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দারা। এ বিষয়ে তারা নরেন্দ্র মোদির সরকারকে সতর্ক করেও দিয়েছে।

তাদের দেয়া তথ্য মতে, ৪০টির বেশি চীনের ফাইটার জেট জে-১০ স্কার্দু বিমানঘাঁটিতে দেখা গেছে। তাই ধারণা করা হচ্ছে চীনের বিমান বাহিনী ভারতে হামলার জন্য পাকিস্তানের এই ঘাঁটিটি ব্যবহার করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।
এই বিমানঘাঁটি ভারতের লেহ’র থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। চীনের যেকোনো বিমানঘাঁটি থেকে এটা ভারতের অনেক কাছে। সূত্রের খবর, এই জন্য চীন স্কার্দু বিমান ঘাঁটি ব্যবহার করে নিজের শক্তি পরীক্ষা করতে চায়। যাতে ভারতের একদম কাছ থেকে ভারতের উপর হামলা চালানো যায়। আর এমনটা হলে ভারতকে ২টি আলাদা সীমান্তে লড়াই করতে হবে।

সূত্র আরো জানায়, লাদাখে হামলা চালানোর জন্য চীনের কাছে তিনটি বিমানঘাঁটি রয়েছে। সেখান থেকে ফাইটার এয়ারক্রাফট ব্যবহার করা যেতে পারে। এগুলো হল কাশগর, হোতান আর নগ্রি গুরগুংসা। এই বিমানঘাঁটিগুলো থেকে তাদের হামলা চালানোর ক্ষমতা সীমিত। কাশগর থেকে লেহ’র দূরত্ব ৬২৫ কিলোমিটার, খোতান থেকে ৩৯০ কিমি, ও গুরগুংসা থেকে ৩৩০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে। এগুলো সবই ১১ হাজার ফুটের বেশি উচ্চতায়।

তাই ১০০ কিলোমিটার দূরে পাকিস্তানের স্কার্দু বিমানঘাঁটি চীনের জন্য সবচেয়ে ভাল অপশন। কারগিল সেখান থেকে ৭৫ কিলোমিটার দূরে। এই এয়ারবেসে ২টি রানওয়ে আছে। একটি আড়াই কিলোমিটার লম্বা আর দ্বিতীয়টি ৩.৫ কিমি লম্বা। চীনের ফাইটার জেট এই বিমানঘাঁটি থেকে কাজ করে আবার সেখান থেকে ফিরে যেতে পারবে। আর ভারত যদি স্কার্দুতে পাল্টা হামলা চালায় তাহলে পাকিস্তানও যুদ্ধ শুরু করার সুযোগ পেয়ে যাবে।

No comments:

Post a comment

loading...