Tuesday, 21 July 2020

চীনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে ভারত-আমেরিকা নৌসেনার যৌথ মহড়া

ওয়েব ডেস্ক ২১শে জুলাই  ২০২০:চীনের সঙ্গে সীমান্তে সংঘাতে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে আমেরিকা। যুদ্ধ ঘোষণা হলে সরাসরি ভারতীয় সেনার পাশে থাকার কথা ঘোষণা করেছে হোয়াইট হাউস। এবার চীনকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে চলতি সপ্তাহেই আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কাছে যৌথ মহড়ায় যোগ দিচ্ছে ভারত ও মার্কিন নৌবাহিনী। সোমবার এমনই তথ্য জানা গিয়েছে।
ইতোমধ্যেই মহড়ার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনীর ইস্টার্ন ফ্লিট। অন্যদিকে, রওনা দিয়েছে মার্কিন বাহিনী। চলতি সপ্তাহের শেষে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কাছে যৌথ মহড়া শুরু করবে দু'দেশের নৌসেনা।
ভারত-আমেরিকা ছাড়াও চীনা জাহাজের যাতায়াতের মালাক্কা প্রণালীর কাছে মহড়ায় অংশ নেবে জাপান ও অস্ট্রেলিয়াও। প্রসঙ্গত, গত বছরই চতুর্দেশীয় নিরাপত্তা নীতি নিয়ে আলোচনা করেছিল আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, জাপান ও ভারত। যা নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিল বেজিইং।

এছাড়াও ভারত-চীন সীমান্তের সংঘাতের পরপরই দক্ষিণ চীন সাগরে রণতরী পাঠিয়ে দিয়েছিল আমেরিকা। যা নিয়ে বিবৃতি দিতে বাধ্য হয় বেজিইং। প্রসঙ্গত, মোদী সরকারের আমলেই এর আগেও দক্ষিণ চীন সাগরে ভারত ও আমেরিকার যৌথ টহলদারির খবরে তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছিল এশিয়া মহাদেশের বিশাল জলসীমায়। এই দক্ষিণ চীন সাগরকে নিজেদের এলাকা বলে দাবি করা চীন যার জেরে মোটেই খুশি ছিল না।
আবার দক্ষিণ চীন সাগরেই চীনের তৈরি কৃত্রিম দ্বীপের খুব কাছে অবস্থিত দেশ ব্রুনেই-এর সঙ্গে সামরিক সমঝোতা করেছিল নয়াদিল্লি। যার যথেষ্ট প্রশংসা করেছিলেন মার্কিন নৌসেনার প্রধান অ্যাডমিরাল। প্রসঙ্গত, প্রেসিডেন্ট ওবামার সময় থেকে শুরুর পর বর্তমানে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময়ে আমেরিকার সঙ্গে ভারতের সামরিক সমঝোতা বহুগুণ বেড়েছে।

গত ১৫ জুন গলওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন ভারত ও চিনের সেনা বাহিনীর জওয়ানরা। দু’তরফের সংঘর্ষে শহিদ হন ২০ ভারতীয় জওয়ান। চীনা শিবিরেরও ৪০ জনের মৃত্যুর খবর মেলে।

No comments:

Post a comment

loading...