Wednesday, 29 July 2020

একলাফে অনেকটা শক্তি বাড়িয়ে দেবে রাফায়েল, আজ ছোঁবে দেশের মাটি

ওয়েব ডেস্ক ২৯শে জুলাই ২০২০: ফ্রান্স থেকে কেনা রাফাল যুদ্ধবিমানের পাঁচটি বুধবার ভারতের আম্বালা বিমানঘাঁটিতে পৌঁছাবে। ইতোমধ্যে বিমানগুলো ফ্রান্স থেকে রওনা হয়েছে। পথে মাঝ আকাশে জ্বালানি নেওয়ার মুহূর্ত।ফ্রান্স থেকে কেনা ৫টি রাফায়েল বিমান বুধবার আমম্বালা বিমানঘাঁটিতে পৌঁছাবে। ইতোমধ্যে বিমানগুলো ফ্রান্স থেকে রওনা হয়েছে। প্রথম ব্যাচের পাঁচটি বিমান ভারতীয় বিমান বাহিনীর ১৭ নম্বর স্কোয়াড্রোনে যোগ দেবে।
এদিকে, বহুল কাঙ্ক্ষিত রাফাল যুদ্ধবিমানের প্রথম ব্যাচ দেশের পথে রওনা হতেই দেশে উচ্ছ্বাস শুরু হয়েছে। বিশেষ করে ‘গোল্ডেন অ্যারো বা সোনার তির’ নামে পরিচিত রাফালের অন্তর্ভুক্তি ঘিরে সবচেয়ে উচ্ছ্বসিত বিমান বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তারা।তাদের মতে, ভারতের সুরক্ষার ক্ষেত্রে ‘গেম চেঞ্জার’ হতে চলেছে রাফাল। কিন্তু কেন এই যুদ্ধবিমান ‘গেম চেঞ্জার’?

সূত্রের খবর অনুসারে , গত ১৯৯৭ সালের পর ভারতীয় বিমান বাহিনীতে কোনো বিদেশি যুদ্ধবিমান অন্তর্ভুক্ত হয়নি। ফলে বিমান বাহিনীর হাতে ‘বয়স্ক’ যুদ্ধবিমান ছিল। রাফাল অন্তর্ভুক্ত হওয়ার ফলে বিমান বাহিনীর শক্তি বৃদ্ধি পাবে। বিশেষত চীন এবং পাকিস্তানের সঙ্গে উত্তেজনার পরিস্থিতিতে ভারতের হাত পোক্ত করবে রাফাল। নিয়ন্ত্রণ রেখা এবং প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর ভারতের সামরিক শক্তি একলাফে অনেকটা বাড়বে।

দুই ইঞ্জিনের এই যুদ্ধবিমান স্থল, সমুদ্র, আকাশ- সর্বত্র হামলা চালাতে পারে। শত্রুপক্ষের অবস্থান খুঁজে বের করে তাদের নিশানা করতে পারে। শুত্রুপক্ষ কোনো এলাকা দখল করে থাকলে সেখানে খুব নীচ থেকে হামলা চালানো কঠিন। সেক্ষেত্রে নিজেদের ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে। রাফাল উঁচু থেকেই সেই কাজটা করতে পারে। শত্রুপক্ষকে নিখুঁত নিশানা করে গুঁড়িয়ে দিতে সক্ষম এই যুদ্ধবিমান। একইসঙ্গে প্রায় ১০ টন ওজনের অস্ত্র বইতে পারে সেই যুদ্ধবিমান।
এছাড়াও ভারতীয় বিমান বাহিনীর চাহিদা অনুযায়ী একাধিক বৈশিষ্ট্য থাকছে রাফালে। এতে র‌্যাডার ওয়ার্নিং রিসিভার থাকছে যা শত্রুপক্ষের সেই রেডিও সিগনাল চিহ্নিত করতে পারে। ফ্লাইট ডেটা রেকর্ডারের সুবিধা আছে। তাতে ১০ ঘণ্টার ডেটা রেকর্ড করা যাবে।পাইলটদের হেলমেটে যাবতীয় তথ্য দেখার সুবিধা রয়েছে। ইনফ্রারড সার্চ এবং ট্র্যাকিং সিস্টেম আছে রাফালে। একইসঙ্গে আছে জ্যামার।

ভারতীয় বিমান বাহিনীর সাবেক প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল অরূপ রাহা (অব.) বলেন, ‘রাফাল ভারতীয় বিমান বাহিনী যুদ্ধ জয়ের হাতিয়ার হবে এবং চীনের সঙ্গে সামরিক উত্তেজনার সময়ে বড়সড় মনোবল বাড়াবে।’ এর আগে ফ্রান্সের তৈরি অত্যাধুনিক রাফাল যুদ্ধবিমানের প্রথমটি গত বছরের অক্টোবরের শুরুর দিকে হাতে পায় ভারত। তখন যুদ্ধবিমান হাতে পেয়েই এক চক্কর উড়ান দেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। দেন অস্ত্র পূজাও।

ফরাসি সংস্থা দাসোঁ অ্যাভিয়েশন এই যুদ্ধবিমান তৈরি করছে। ২০১৬ সালে হওয়া ৫৯ হাজার কোটি রুপির চুক্তি অনুযায়ী ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান পাবে ভারত। আগামী ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে সবক’টি বিমান ভারতে পৌঁছাবে।

No comments:

Post a comment

loading...