Wednesday, 9 September 2020

গত ১৫ জুলাইয়ের পুনরাবৃত্তি করতেই মরিয়া চীনা সেনা ,প্রতিবাদ নেই আলিমুদ্দিনদের

ওয়েব ডেস্ক ৯ই সেপ্টেম্বর ২০২০ :লাদাখের বিরোধপূর্ণ গালওয়ান উপত্যকায় আবারও হাতে রড, বর্শা ও লাঠি নিয়ে অবস্থান নেয় চীনা সেনারা। সোমবার উপত্যকার প্যাংগং হৃদের দক্ষিণ তীরে মুখপারি এলাকার রাজাংলায় ভারতীয় সেনাদের অবস্থান লক্ষ্য করে এগুনোরও চেষ্টা করেছিল তারা। সব কিছু জেনেও নীরবতার ভূমিকা পালন করছে আলিমুদ্দিন।  তাই প্রশ্ন উঠছে সর্বত্র তারা কি আদেও ভারতীয় ? না ভোট পাওয়ার জন্যই লোক জড়ো করে থাকেন ? পরেরটাই যে একেবারে ঠিক সেটা মানুষও জেনে গেছে।  তও কিছু মানুষ আছেন , এই দেশবিরোধীদের আবোলতাবোল শোনেন। 

সূত্রের খবর অনুসারে , গত ১৫ জুন গালওয়ানে চীনা বাহিনী যে ঘটনা ঘটিয়েছে, ঠিক তেমনই প্রস্তুতি নিয়েছে তারা। একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, প্রত্যেক সেনার হাতে লোহার রড ও সঙ্গে অটোমেটিক মেশিনগান। বলা হচ্ছে, প্রথমবারের মতো চীনের এমন ছবি প্রমাণ হিসেবে পাওয়া গেছে। ভারতের দাবি, সোমবার সন্ধ্যায় চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির ৫০ থেকে ৬০ জন সদস্য লাদাখের ব্যাংহং হুনানে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) পেরিয়ে ভারতের দখলে থাকা একটি পাহাড়ের চূড়া দখলের চেষ্টা করে। এ সময় ফাঁকা গুলি চালায় চীনের বাহিনী। এর জবাবে সতর্কতামূলক গুলি চালায় ভারতীয় সেনাবাহিনীও। সময়মতো দু’পক্ষেরই উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। চীন অবশ্য দাবি করেছে, ভারতীয় সেনারা একতরফাভাবে এলএসি অতিক্রম করে ও গুলি ছোড়ে। তাই তারাও পাল্টা পদক্ষেপ নিয়েছে। ভারত বলছে, চীনা বাহিনী কয়েকবার উত্তেজিত করে তোলে। পাশাপাশি ১৪ হাজার ফুট পাহাড়ের চূড়া দখলের চেষ্টা করে। ভারতীয় সূত্র জানিয়েছে, হামলার সময় চীনা সেনাদের হাতে রড, বর্শা, লাঠি ও ধারালো অস্ত্র ছিল। এ ব্যাপারে চীনের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।১৫ জুন লাদাখের গালওয়ানে চীন-ভারতের সেনাবাহিনীর সংঘর্ষে ২০ ভারতীয় জোয়ান নিহত হন। তবে চীনের পক্ষ থেকে কোনো হতাহতের খবর প্রকাশ করা হয়নি। ভারতীয় সূত্র বলছে, চীনা বাহিনী তেমন অস্ত্র নিয়েই ভারতের সীমান্তে ঢোকার চেষ্টা করেছে।


No comments:

Post a comment

loading...